Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net

পাকিস্তানে মাজারে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ৭২ : আইএস’র দায় স্বীকার

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে একটি মাজারে আত্মঘাতী হামলায় অন্তত ৭২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন শতাধিক। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শেহওয়ান এলাকার ইন্দুস হাইওয়ের কাছে ওই মাজারে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনাটি ঘটে। শেহওয়ান এলাকার বিখ্যাত লাল শাহবাজ কালান্দার মাজারে এই হামলার দায় স্বীকার করে আমাক নিউজ এজেন্সিতে বিবৃতি দিয়েছে আইএস। লাল শাহবাজ কালান্দার পাকিস্তানের সবচেয়ে সম্মানীয় সুফি মাজার। বিশেষ পবিত্র হিসেবে সাধারণত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সুফি সাধক ও ভক্তরা মাজারটিতে জড়ো হন। আর সেই সময়টিতেই আত্মঘাতী হামলাটি হয়। বোমা বিস্ফোরণের পর অনেককেই রক্তাক্ত অবস্থায় প্রাইভেটকারে করে হাসপাতালে নিয়ে যেতে দেখা গেছে। সিন্ধু পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সাব্বির সেথার সঙ্গে রয়টার্সের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে স্থানীয় একটি হাসপাতাল থেকে তিনি টেলিফোনে বলেন, বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ৭২ জন নিহত এবং ১২০ জনের বেশি জখম হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

পাকিস্তানের একটি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শেহওয়ান এলাকার ইন্দুস হাইওয়ের কাছে ওই মাজারে এই আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। স্থানীয় তালুকা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক চিকিৎসক মঈনুদ্দিন সিদ্দিকী বলেন, হাসপাতালে অনেক জনের লাশ এসেছে।এ ছাড়া চিকিৎসার জন্য কমপক্ষে ১০০ জনকে আহত  অবস্থায় আনা হয়।

শেহওয়ান এলাকার সহকারী এসপি বলেন, আত্মঘাতী সন্ত্রাসী মাজারের গোল্ডেন গেট দিয়ে প্রবেশ করেছে। প্রথমে একটি গ্রেনেড ছোড়ার পর আত্মঘাতী বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। তবে ছুড়ে দেয়া গ্রেনেডটি বিস্ফোরিত হয়নি। মাজারে সুফি রীতি অনুযায়ী সেখানে অসংখ্য ভক্তের সমাগম ছিলো।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হাসপাতালসহ ওই এলাকায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য লিয়াকত মেডিকেল কমপ্লেক্স জামশরো ও সাব-ডিস্ট্রিক্ট হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় দেশটির সেনাবাহিনীর স্টাফ জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া আহত সাধারণ নাগরিকদের দ্রুত সহায়তার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রয়োজনে পাশের হায়দ্রাবাদে সেনা হাসপাতালেও আহতদের চিকিৎসা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সিন্ধু প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী সৈয়দ মুরাদ আলী শাহ দেশটির জ্যেষ্ঠ সিভিল ও পুলিশ কর্মকর্তাদের ফোন করে ঘটনাস্থলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এর আগে গত বছরের ১২ নভেম্বর বেলুচিস্তান প্রদেশের খুজদার জেলার শাহ নুরানি মাজারে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটে ঘটে। ওই হামলায় অন্তত ৫২ জন নিহত ও ১০২ জন আহত হয়।

সিন্ধু পুলিশ এক বিবৃতিতে জনিয়েছে, ভক্তরা ওই মাজারে জড়ো হলে আত্মঘাতী হামলাকারী তাদের মধ্যে ঢুকে পড়ে। পরে সে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। মাজারে আত্মঘাতী হামলায় বিপুল সংখ্যক মানুষের হতাহতের এই ঘটনা বিগত কয়েকবছরের মধ্যে সবচেয়ে জঘন্যতম।  এর আগে গত বছরের আগস্টে কোয়েটায় হাসপাতালে বোমা হামলায় অন্তত ৭৪ জনের প্রাণহানি হয়েছিলো। ঘটনার পর পরই পাকিস্তানি তালেবান জামাত-উর-আহরার এবং আইএস হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দেয়। এদিকে তাৎক্ষণিকভাবে বোমা হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। জঙ্গিদের বিরুদ্ধে তার সরকারের লড়াই অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দেন তিনি। আমার হৃদয় হতাহতদের পাশেই থাকবে, বলেন নওয়াজ শরিফ। তবে এসবের কিছুই আমাদের মধ্যে ফাটল ধরাতে পারবে না, আমরা ভীত নই। পাকিস্তানের পরিচয় রক্ষায় এবং মানবতর স্বার্থে আমাদের এক হয়ে এই জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।

 


আরো দেখুন

চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পরিদর্শন করলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা শিশু-কিশোর সাঁতার প্রশিক্ষন কেন্দ্র পরিদর্শন করলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া। …

Loading Facebook Comments ...