Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net

অবিলম্বে তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নিতে সরকারের কাছে আহ্বান

রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের কর্মবিরতি
স্টাফ রিপোর্টার: রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি কর্মসূচি পালন করেছে কর্মকর্তা-কর্মচারিরা। এ উপলক্ষে পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে গতকাল সোমবার সকাল ৯টা থেকে বেলা ৫টা পর্যন্ত চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে এ কর্মসূচি পালন করে। বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের ডাকে অনুষ্ঠিত পূর্ণদিবস কর্মবিরতি চলাকালে চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নির্বাহী প্রকৌশলী আয়ুব আলী বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক টিকাদান সুপারভাইজার আলী হোসেন, উপদেষ্টা পৌর সচিব কাজি শরিফুল ইসলাম, সহকারি প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান কাওসার, হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবুবকর বিশ্বাস ও প্রধান সহকারি আশাবুল পৌরসভার কর্মচারিদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে নির্বাহী প্রকৌশলী আয়ুব আলী বিশ্বাস বলেন, বর্তমানে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিরা রোহিঙ্গাদের চেয়েও খারাপ অবস্থায় আছে এবং মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ দেশের ৩২৭টি পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারিদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশন দিয়ে জনসেবামূলক এ প্রতিষ্ঠানকে রক্ষা করতে আপনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অন্যথায় পরিবার-পরিজন নিয়ে জীবন ধারণ করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারিরা সরকারি কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশন পেলেও পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের কোনো কিছুই দেয়া হয় না। তাই অবিলম্বে তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নিতে সরকারের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি। পূর্ণদিবস কর্মবিরতি কর্মসূচি চলার কারণে সকল নাগরিক সেবা বন্ধ থাকায় দূর্ভোগে পড়ে চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার নাগরিকরা।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা পৌরসভায় কর্মবিরতি পালন অনুষ্ঠানে মেয়র হাসান কাদির গনু এর পূর্ণ সমর্থনে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র (১) সদর উদ্দিন ভোলা, প্যানেল মেয়র (২) জহুরুল ইসলাম স্বপন, প্যানেল মেয়র (৩), সামসাদ রানু, কাউন্সিলর আলাল উদ্দিন, কাউন্সিলর কাজী আলী আজগর সাচ্চু, কাউন্সিলর আব্দুল গাফ্ফার, কাউন্সিলর মতিয়ার রহমান ফারুক, কাউন্সিলর ফারুক হোসেন, কাউন্সিলর জাহিদুল ইসলাম, কাউন্সিলর মামুন অর রশিদ হাসান, আলমডাঙ্গা পৌর সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে আয়োজিত পূর্ণদিবস কর্মবিরতি অনুষ্ঠানে কর্মচারিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আনিছুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম, আব্দুল হামিদ, মিজানুর রহমান, হামিদুল ইসলাম নিলা, খন্দকার খাইরুল ইসলাম, খন্দকার আসাদুল ইসলাম, আব্দুল জব্বার লিপু, মোস্তাক আহমেদ, সৈয়দ বাবুল আক্তার, জেহের আলী, মুস্তাফিজুর রহমান সোহাগ, হাফিজুর রহমান, আবু সায়েম, আব্দুস ছাত্তার, জয় কুমার বিশ্বাস, শেফালী সাধু খা, বিল্লাল হোসেন, মিনারুল হক, মাজেদা বেগমসহ পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারি উপস্থিত ছিলেন।
দর্শনা অফিস জানিয়েছে, দর্শনা পৌরসভায় অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেছেন কর্মকর্তা-কর্মচারিবৃন্দ। গতকাল সোমবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ কর্মবিরতি চলে। রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে তারা এ কর্মবিরতি করেন। দর্শনা পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহ আলমের সভপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, কাউন্সিলর হাসান খালেকুজ্জামান, চান্দু মাস্টার, নজরুল ইসলাম, কানচু মাতবার, রেজাউল ইসলাম, মঈনউদ্দীন মন্টু, মহিলা কাউন্সিলর সুরাতন নেছা, পৌর কর্মচারি হাজি ইউনুচ আলী, রুহুল আমিন, সৈয়দ রুমি আলম পলাশ, আরেফিন হোসেন, মমিনুল ইসলাম, আব্দুল মজিদ, আসাদুল ইসলাম আসাদ ও তছের আলী। এ সময় পৌরসভার সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন। সার্বিক অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ।
জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, জীবননগর পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিদের ন্যায্য এ দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও পৌর পরিষদের ১২জন কাউন্সিলর তাদের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের দাবি মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানানো হয়। সকাল ৯টার থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পুর্ণদিবসের কর্মবিরতি পালনকালে জীবননগর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারি কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজেদা খাতুনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জামাল উদ্দিন, কামরুজ্জামান খোকা, সরাফাত হোসেন, তরিকুল ইসলাম, হাসানুজ্জামান পলক ও বিলকিস খাতুন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার হতে বেতন ভাতা ও পেনশনসহ সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা প্রদানের দাবি জানানো হয়।
মেহেরপুর অফিস জানায়িছে, বেতন-ভাতাদি ও পেনশন সুবিধা সরকারি কোষাগার হতে প্রাপ্তির দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছে মেহেরপুর পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারিরা। সোমবার সকাল ৯টা থেকে পৌর কার্যালয় প্রাঙ্গণে কর্মবিরতি পালন শুরু করেন তারা। কর্মবিরতি পালনে নেতৃত্ব দেন জেলা পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি পৌর সচিব তৌফিকুল আলম। বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সেলিম রেজা, সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হাসান দিপু, সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সদস্য হাবিবুর রহমান, শফিউদ্দিন, রকিবুল ইসলাম মিঠু প্রমূখ। এ সময় পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারিরা কর্মবিরতিতে অংশগ্রহণ করেন।
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছে ঝিনাইদহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কর্মবিরতি দিয়ে পৌরসভা প্রাঙ্গণে অবস্থান নেয় তারা। এ সময় পৌর কাউন্সিলর অ্যাসোসিয়েশন জেলা শাখার সভাপতি সাইফুল ইসলাম মধু, বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিসেস অ্যাসোসিয়েশন জেলা শাখার সভাপতি আছাদুজ্জামান চাঁন, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম, পৌরসভার সচিব আজমল হোসেন, পৌরসভা সার্ভিসেস অ্যাসোসিয়েশন জেলা শাখার সদস্য বদর উদ্দিন, বিএম আব্দুল মজিদ, রুহুল আমীন, সেলিম রেজা, শাহিনুর ইসলাম, নাজির, অঞ্জলী রাণী বক্তব্য রাখেন।
কালীগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতা ও পেনশনের দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কর্মবিরতি দিয়ে পৌরসভা প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয়। এ সময় বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিসেস অ্যাসোসিয়েশন নেতা ও পৌরসভার সচিব মস্তাক আহমেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কালীগঞ্জ পৌর প্যানেল মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ। অন্যানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আবু জাফর, আলমগীর হোসেন প্রমুখ।


আরো দেখুন

দ্রুত চালুর জন্য একযোগে কাজ করতে ঐকমত্য

জীবননগর স্থলবন্দর চালুর লক্ষ্যে ভারতের কৃষ্ণগঞ্জে যৌথসভা জীবননগর ব্যুরো: দৌলৎগঞ্জ-মাজদিয়া স্থলবন্দর দ্রুত চালুর বিষয়ে গতকাল …

Loading Facebook Comments ...