এক দশকের সম্পর্কে ইতি টানছেন অভিষেক-ঐশ্বর্য

বিনোদন ডেস্ক: শেষমেশ বচ্চন পরিবারেও ফাটল ধরল। দীর্ঘ এক দশকের বিবাহিত সম্পর্কে ইতি টানতে চলেছেন অভিষেক বচ্চন ও ঐশ্বর্য রাই। বেশ কয়েকদিন ধরেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। আলাদা বাড়িতে থাকতেও শুরু করেছিলেন অভিষেক-ঐশ্বর্য। কিন্তু তাতেও টিকল না সম্পর্ক। নিজের টুইটার প্রোফাইলে পরিবারের দুঃসময় প্রকাশ করেই ফেললেন বিগ বি।

সরাসরি হয়তো কিছু বলেননি। কিন্তু পরোক্ষোভাবে মনের দু:খ জাহির করে ফেলেছেন বলিউডের শাহেনশা। তবে বিগ বি তেমন কিছু না বললেও বলিউডে রটনা ইতিমধ্যেই রটে গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, শাশুড়ি আর ননদের দাপটেই নিত্য অশান্তি লেগে থাকত বচ্চন পরিবারে। জয়া বচ্চনের সঙ্গে নাকি একদম বনিবনা হচ্ছিল না অ্যাশের। আগুনে ঘৃতাহুতি পড়ে ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এর সময়। ছবিতে পার্শ্ব চরিত্রে ছিলেন ঐশ্বর্য। তবে রণবীরের সঙ্গে তাঁর বেশ কিছু ঘনিষ্ঠ দৃশ্য রয়েছে। এতেই ক্ষেপে যান জয়া। নিজের বাড়ির পুত্রবধূর এমন স্পর্ধায় ক্ষোভ চরমে পৌঁছায়।

এমনিতেই অভিষেকের অভিনয় কেরিয়ারে মন্দাভাব চলছে। এর উপরে তিনি যদি স্বাধীনভাবে সিনেমা না করতে পারেন, তাহলে মেয়ের লালনপালন কেমন করে করবেন? এই প্রশ্নে দাম্পত্যকলহ শুরু হয়ে যায়। যার পরিণাম এই পর্যায়ে পৌঁছেছে। এমনিতেই বলিউডে বিচ্ছেদের নমুনা কম নেই। তবে অভিষেকের পক্ষে স্ত্রীর উচ্চাকাঙ্খা সামলানো সম্ভব হল না। তাই শেষপর্যন্ত আদালত পর্যন্ত গড়াল বচ্চন পরিবারের বিবাহবিচ্ছেদ। আর ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেললেন অভিষেক-ঐশ্বর্য। তবে প্রশ্ন উঠেছে একমাত্র সন্তান আরাধ্যাকে নিয়ে। কার কাছে থাকবে উত্তরসূরি? তাই নিয়ে নাকি তরজা চলছে দুই পক্ষের মধ্যে।

ওহ! এই তরজার মধ্যে একটি কথা তো বলতে ভুলেই গিয়েছি। উপরোক্ত যাবতীয় খবর মিথ্যে। হ্যাঁ, যা পড়লেন সম্পূর্ণ মিথ্যা। আরে আজকের তারিখটা দেখুন! সারা দুনিয়ায় এই একটাই দিন রেখে দেওয়া আছে নিছক মজা করার জন্য। দিনটার অস্থিমজ্জাতেই যে লুকিয়ে আছে এ কথা। কত জোক এল গেল, কত জোকই আসবে অভিষেক-ঐশ্বর্য নিজেদের মতো থেকেই যবেন। কিন্তু পয়লা এপ্রিল আর তো কাল থাকবে না। এই নিছক রসিকতা করার লাইসেন্সটুকুও তাই থাকবে না। তাই না হয় একটু মশকরা আজ মেনেই নিলেন। বরং ভাবুন, খবরটি সত্যি না হওয়ার আনন্দ কতটা পেলেন। এই আনন্দটুকু নিয়েই তো জীবন। আর জীবনের এটুকুই চাহিদা। আজকের দিনে একটু মজা শেয়ার করতেই পারেন। তার সঙ্গে এই কামনা, বচ্চন পরিবারে যেন এমন ফাটল কোনওদিন না ঘটে।


আরো দেখুন

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সবই করবো

স্টাফ রিপোর্টার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, চলচ্চিত্র মানুষের জীবনের প্রতিচ্ছবি। এর মাধ্যমে সমাজে অনেক বার্তা …

Loading Facebook Comments ...