দুছেলেকে সমাজের আদর্শ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চান আব্দুর রাজ্জাক

জিয়াউর রহমান জিয়া: দরিদ্র ভাজা বিক্রেতার ছেলে রাজু আহম্মেদ। পিএসসি পরীক্ষায় সে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে। রাজু পারলক্ষ্মীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে এ কৃতিত্ব অর্জন করে। দুই ভাইকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করানোর জন্য তার পিতা আব্দুর রাজ্জাক পারলক্ষ্মীপুর বাজারের বটতলায় বসে বড়া ভাজা বিক্রি করে সংসারসহ ছেলেদের লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছেন।
রাজ্জাকের বড় ছেলে রানা আহম্মেদ এসএসসি জিপিএ-৫সহ এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়ে বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত। রাজু আহম্মেদের ইচ্ছা ভবিষ্যতে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এলাকার গরীব অসহায় ছেলে-মেয়েদের বিনামূল্যে লেখাপড়া করার সুযোগ করে দেয়া।
পারলক্ষ্মীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আহমেদ আলী জানান, রাজু ও রানা দুই ভাই বিদ্যালয়ে নিয়মিত ক্লাস করতো। পড়াশোনায় ছিলো খুবই মনোযোগী। যে কারণে এই ফলাফল করতে পেরেছে তারা। তিনি আরও বলেন, দরিদ্র পরিবারের ছেলে রাজু আহম্মেদ ও রানা আহম্মেদ আর্থিক সাহায্য সহযোগিতা পেলে অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারবে বলে আমার বিশ্বাস। তার পিতা বড়া বিক্রি করে সংসার চালিয়ে দুই ছেলেকে ভালো মাস্টার দিয়ে প্রাইভেট পড়াতে পারিনি, তারা অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করেছে। আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ভাজা বিক্রি করে দুছেলেকে পড়াশোনা করানো অসম্ভব হলেও আমি তাদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে সমাজের আদর্শ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করবো।
এই বিষয়ে আইলহাস লক্ষ্মীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাইজাল হোসেন বলেন, বিগত সময় দরিদ্র আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে রানা আহম্মেদকে বিদ্যালয়ের বেতনসহ সবকিছু মওকুফ করা হয়েছিলে এবারও তার ছোট ছেলে রাজু আহম্মেদকে ভর্তি ফিসহ সকল কিছু মওকুফ করা হয়েছে। সেই সাথে বিদ্যালয় থেকে সকল সুবিধা দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।


আরো দেখুন

আলমডাঙ্গার জামজামি বাজারে কর্মীসমাবেশে আসাদুল হক বিশ্বাস

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ ডিজিটাল বাংলায় পরিণত হয়েছে স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের সিনিয়র সহসভাপতি …

Loading Facebook Comments ...