চুয়াডাঙ্গায় জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ

ঈদে পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া যাবে না
স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১০টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া যাবে না বলে সভায় জেলা প্রশাসক সতর্ক করে দিয়েছেন। জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা পরিচালনায় ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পাপিয়া আক্তার। সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) তরিকুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. খায়রুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) জসিম উদ্দীন, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সী আলমগীর হান্নান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াশীমুল বারী, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাহাত মান্নান, জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সৈয়দা নাফিজা সুলতানা, অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক আসলাম হোসেন, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন খান ও যুব উন্নয়ন অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মাসুম আহমেদসহ আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ বলেন, ঈদ উপলক্ষে পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া যাবে না। ঈদের সময় পরিবহনে ডাকাতির ঘটনা না ঘটে সেদিকে পুলিশ বাহিনীকে তৎপর থাকতে হবে। শহরের রাস্তার পাশে ট্রাক পার্কিং করা চলবে না। ঈদের সময় পার্কে শ্লীলতা বজায় থাকে সেদিকে পার্ক কর্তৃপক্ষকে নজর দিতে হবে। পার্কের রাইডসগুলো পরীক্ষা করবেন যাতে কোনো ত্রুটি না থাকে। হাট-বাজারে জাল নোট পরীক্ষার জন্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষ মেশিনের ব্যবস্থা করবেন। ঈদের পর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের অভিযান আবার চলবে। চলন্ত ট্রেনে বাচ্চারা ঢিল না ছুড়ে সেদিকে সকলকে খেয়াল রাখতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান সাড়া জাগিয়েছে। পবিত্র রমজান মাসে খাদ্যে ভেজাল না দেয় এবং দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি না ঘটে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত থাকবে। শহরের যেসকল ব্যানার, হারবাল, চিকিৎসা ও পুরানো বিলবোর্ড রয়েছে তা অপসারণ করা হবে। কোচিং বাণিজ্য বন্ধে পদক্ষেপ অব্যাহত থাকবে। দামুড়হুদায় সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় ওই ছাত্রীর বিয়ের সাথে জড়িত মাওলানা, কাজী ও সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করতে ইউএনওকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
অতিরিক্ত পলিশ সুপার (প্রশাসন) তরিকুল ইসলাম বলেন, শহরের নিরাপত্তার জন্য ৪৮টি সিসিটিভি লাগানো হয়েছে। ঈদের পর আরও লাগানো হবে। মাদকবিরোধী অভিযানের ফলে মধ্যমমানের কোনো মাদকব্যবসায়ী এলাকায় নেই। তাদেরকে পেলেই গ্রেফতার করা হবে। ঈদে ঘরফেরত মানুষ নির্বিঘেœ যাতায়াত করতে পারে সেজন্য টহল পুলিশের সংখ্যা বাড়ানো হবে।


আরো দেখুন

কোটচাঁদপুরে মেয়েকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠিয়েছে বখাটেরা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: মেয়েকে উত্ত্যক্ত ও অশ্লীল কথাবার্তার প্রতিবাদ করায় পিতাকে বেধড়ক মারপিট করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে …

Loading Facebook Comments ...