মেহেরপুরে পাসপোর্ট নিয়ে কর্মচারীদের সাথে মোটরশ্রমিকদের ধস্তাধস্তি

প্রতিবাদে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ : প্রশাসনের আশ্বাসে স্বাভাবিক
মেহেরপুর অফিস: অফিসের নির্ধারিত সময়ের পরে পাসপোর্ট নিতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে পাসপোর্ট অফিসের নিরাপত্তা কর্মীদের সাথে শ্রমিক নেতার হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। হাতাহাতির ঘটনায় মেহেরপুর মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদকসহ দু’জন আহত হয়েছেন। এ নিয়ে সড়কের কয়েকটি স্থানে আগুন জ্বেলে অবরোধ করাসহ মেহেরপুরের সব রুটে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় শ্রমিকরা। তিন ঘণ্টা পর বিকেলে প্রশাসনের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয়া হয়।
পাসপোর্ট নিতে আসা মেহেরপুর সদর উপজেলার রাজনগর গ্রামের আবু সাইদ ড্রাইভারের ছেলে মামুনুর রশিদ জানান, অফিস সময়ের পরে পাসপোর্ট নিতে যান। এ সময় নিরপত্তাকর্মী পুলিশের নায়েক কামরুল হোসেন বলেন, সময় শেষ হয়ে গেছে ১ হাজার টাকা দিলে পাসপোর্ট ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি অভিযোগ করেন।
মামুনুর রশিদ বিষয়টি মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমানকে জানালে তিনি পাসপোর্ট অফিসে এসে নিরাপত্তাকর্মীকে পাসপোর্ট দিয়ে দিতে বলেন। এ সময় নিরাপত্তাকর্মী কামরুল হোসেন উগ্রআচরণ করলে মতিয়ার ধাক্কা দেন। পরপরই অফিসের সব নিরাপত্তাকর্মী একসাথে সম্পাদক মতিয়ার রহমান ও তার সাথে থাকা সাহারুল ড্রাইভারকে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে।
তবে অভিযুক্ত নায়েক কামরুল হোসেন টাকা চাওয়ার ঘটনাটি অস্বীকার করে বলেন, শ্রমিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অফিসে ঢুকেই তাকে একটি থাপ্পড় মারলে তার সহকর্মীদের সাথে তাদের ধস্তাধস্তি হয়।
মেহেরপুরে পাসপোর্ট নিতে গিয়ে পুলিশের হাতে শ্রমিক নেতাদের মারধরের প্রতিবাদে প্রায় ৩ ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে রাখে মোটরশ্রমিক ইউনিয়ন। গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় শহরের বাসস্ট্যান্ড, পাসপোর্ট অফিসের সামনে ও ওয়াপদার মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে শ্রমিকেরা। এ সময় মেহেরপুর-কুষ্টিয়া, মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কে আন্তঃজেলার বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। এদিন বিকেলে এক জরুরি বৈঠকে জেলা প্রশাসকের সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হলে সকল রুটে বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়।
মেহেরপুর জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান জানান, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তার ঘনিষ্ঠ ট্রাকচালক সাঈদের ছেলে মামুন মেহেরপুর পাসপোর্ট অফিসে যায় এবং অফিসের বেধে দেয়া নির্ধারিত দিনের পরে পাসপোর্ট চায়। এ সময় সেখানে কর্মরত এক সদস্যের সাথে মামুনের বাগবিত-া হয়। তিনি আরও জানান, পাসপোর্ট অফিসের ওই কর্মচারী অফিস সময় পার হয়ে গেছে বলে দাবি করে পাসপোর্ট দেবে না বলে জানিয়ে দেন। তবে এক হাজার টাকা ঘুষ প্রদান করা হলে পাসপোর্টটি দিতে স্বীকার করেন। এ সময় তিনি (মতিয়ার রহমান) মোবাইলফোনে পাসপোর্টটি দিতে অনুরোধ করলে ওই অফিসের কর্মচারী তার সাথে খারাপ আচরণ করেন। পরে তিনি পাসপোর্ট অফিসে পৌঁছুলে অফিসের ওই সদস্যের সাথে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ট্রাকচালক সাহারুল ওই সময় এ ঘটনার সাথে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ওই অফিসের গার্ড ও কর্মচারীদের বেধড়ক লাঠি পিটিয়ে আহত হন ট্রাক চালক সাহারুল। পরে তাকে নেয়া হয় মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে। এ সময় শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে সড়কগুলোতে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে।
মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পুলিশ নিয়ে উপস্থিত হই এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান পাসপোর্ট অফিসের যার সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি পুলিশের নায়েক কামরুল।
খবর পেয়ে জেলা প্রশাসনের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শেখ ফরিদ আহমেদ, পৌর মেয়র মাহফুজুর রহমান রিটন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যান। এ সময় জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে এক জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মো. গোলাম রসুলের সভাপতিত্বে জরুরি বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম, ডিবি পুলিশের ওসি শাহিনুর রহমান, জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আহসান হাবিব সোনা, সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান প্রমুখ। মোটরশ্রমিক নেতাদের দাবির প্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার মধ্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাস দিলে মোটর শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহর করে।


আরো দেখুন

চুয়াডাঙ্গায় ৬ দিনের মাথায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার

স্টাফ রিপোর্টার: টানা ৬দিন পর জেলার অভ্যন্তর রুট ও দূরপাল্লার বাস চলাচল শুরু হয়েছে। গতরাত …

Loading Facebook Comments ...