মেহেরপুরে অবৈধ অস্ত্র ও বোমা রাখায় জনযুদ্ধের সদস্যের ১০ বছরের কারাদণ্ড

মেহেরপুর অফিস: অবৈধ অস্ত্র ও বোমা রাখার দায়ে রফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড  দিয়েছে আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে মেহেরপুরের স্পেশাল ট্রাইবুনাল ৪র্থ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মো. তাজুল ইসলাম ওই রায় দেন। দণ্ডিত রফিকুল ইসলাম গাংনী উপজেলার আড়পাড়া গ্রামের মাহাতাব আলী বিশ্বাসের ছেলে। সাজাপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টি (এমএল) জনযুদ্ধের সদস্য ছিলেন।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০০৭ সালের ৭ ডিসেম্বর গোপন সূত্রে খবর পেয়ে র‌্যাব ক্যাম্প গাংনীর এসআই দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল আড়পাড়া গ্রামে অভিযান চালান। এসময় পূর্ব-বাংলা কমিউনিটি পার্টির সদস্য আড়পাড়া গ্রামের মাহাতাব আলীর ছেলে রফিকুল ইসলামকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তিতে রফিকুল ইসলামের পানের বরজে মাটির নিচে পুঁতে রাখা অবস্থায় একটি দেশী তৈরি সাটারগান ও ৩টি হাত বোমা উদ্ধার করে র‌্যাব। ওই ঘটনায় ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯(এ) এবং ১৯(বি) ধারায় র‌্যাব গাংনী থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলার প্রাথমিক তদন্ত শেষে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। মামলায় মোট ১১জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণে আসামি রফিকুল ইসলাম দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাকে ওই সাজা দেন।
মামলায় রাষ্ট্র পক্ষে সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর মীনা পাল এবং আসামি পক্ষে অ্যাড. আতাউল হক কৌঁসুলি ছিলেন।


আরো দেখুন

চুয়াডাঙ্গায় ৬ দিনের মাথায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার

স্টাফ রিপোর্টার: টানা ৬দিন পর জেলার অভ্যন্তর রুট ও দূরপাল্লার বাস চলাচল শুরু হয়েছে। গতরাত …

Loading Facebook Comments ...