দৌলৎগঞ্জ স্থলবন্দর এলাকা পরিদর্শন শেষে কাস্টমস কমিশনার শওকাত হোসেন

চমৎকার প্লেস ও বন্দর হওয়ার মতো উপযুক্ত জায়গা
জীবননগর ব্যুরো: কাস্টমস এক্সসাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের যশোর সার্কেলের কমিশনার শওকাত হোসেন গতকাল মঙ্গলবার দৌলৎগঞ্জ-মাজদিয়া স্থলবন্দর এলাকা পরিদর্শন করেছেন। বিকেলে তিনি স্থলবন্দর এলাকা পরিদর্শনে গেলে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এসময় সময় তিনি প্রতিনিধি দলকে নিয়ে জিরো লাইনে যান এবং ভারত সরকার কর্তৃক নির্মিত ৩২ ফুট চওড়া রাস্তাটি ঘুরে দেখেন। পরে তিনি বন্দর এলাকায় নির্মিত বিভিন্ন অবকাঠামো ঘুরে দেখেন। বন্দর এলাকা পরিদর্শন শেষে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এটি একটি চমৎকার প্লেস, বন্দর হওয়ার মতো উপযুক্ত স্থান। এটি চালু হতে বছরে হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আদায় করা সম্ভব।
গতকাল বিকেলে তিনি সড়ক পথে দৌলৎগঞ্জ স্থলবন্দর এলাকায় এসে পৌঁছুলে জীবননগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোমাল মোর্তূজা, জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল, সীমান্ত ইউপি চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন ময়েন, সীমান্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল মালেক মোল্লা, দৌলৎগঞ্জ সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মজিবর রহমান বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হক, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম আর বাবু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জিএ জাহিদুল ইসলাম, বন্দর বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য জহিরুল ইসলাম ও দৌলৎগঞ্জ ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মাজেদুর রহমান লিটন তাদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। কাস্টমস কমিশনার শওকাত হোসেন এসময় উপস্থিত স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের নিকট এ বন্দরের বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজখবর নেন। বন্দর এলাকা পরিদর্শনকালে যশোর কাস্টমস, এক্সাসাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের অতিরিক্ত কমিশনার আবু ফয়সাল মো. মুরাদ, ডেপুটি কমিশনার শেখ আরেফিন জাহেদী, রাজস্ব কর্মকর্তা জাহিদ হোসেন, রাজস্ব কর্মকর্তা তুষার কান্তি ঘোষ ও সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মাহমুদুল কবীর সোহেলসহ ঊর্ধ্বতন কাস্টমস কর্মকর্তাগণ এসময় উপস্থিত ছিলেন।


আরো দেখুন

আলমডাঙ্গার সাব রেজিস্টারকে অপসারণের দাবিতে দলিল লেখক সমিতি নিকট কলম বিরতি ও স্মারকলিপি প্রদান

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার সাব রেজিস্টারকে অপসারণের দাবিতে দলিল লেখক সমিতি নিকট কলম বিরতি ও স্মারকলিপি …

Loading Facebook Comments ...