দামুড়হুদা উপজেলাব্যাপী মোবাইল ব্যবহার করে খেলা হচ্ছে লুডুর জুয়া

এখনই নিয়ন্ত্রণ না করলে বিপদগামী হবে যুবসমাজ : দরকার সচেতনতা
শরিফ রতন: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলাব্যাপী মোবাইলের অ্যাপস ব্যবহার করে লুডুর মাধ্যমে জুয়া খেলা শুরু হয়েছে। এ খেলায় মেতেছে অধিকাংশ যুবসমাজ। ২০ টাকা থেকে শুরু করে হাজার হাজার টাকা ব্যবহার করে এই জুয়া খেলায় মেতেছে। বিষয়টি এখনই নিয়ন্ত্রণে নেয়া জরুরি। নিয়ন্ত্রণ না করতে পারলে এলাকায় সামাজিক অবসক্ষয় চরম আকার ধারণ করতে পারে সচেতনমহল মনে করেন। এদিকে পুলিশের মনে করেন এলাকাবাসী সচেতনতা হলেই এটা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার অধিকাংশ গ্রামেই বিভিন্ন শ্রেণি পেশার যুবসমাজ মোবাইল অ্যাপসের ব্যবহার করে লুডুর মাধ্যমে জুয়া খেলায় মেতেছে। অল্পসময়ে লুডুর মাধ্যমে এই জুয়া খেলা এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। টাকার বিনিময়ে একসাথে সর্বোচ্চ ৪জন মিলে এই জুয়া খেলছে। পরিস্থিতি এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে একসাথে একের অধিক যুবক বসে থাকলেই দেখা যাবে তারা টাকার বিনিময়ে মোবাইলে লুডু খেলছে।
এবিষয়ে উপজেলার একাধিক সচেতন ব্যক্তিরা জানান, হাট বাজারে ছোট-বড় দোকানে, খেলার মাঠে, স্কুল মাঠে বা ক্লাব ঘরে জমজমাটভাবে চলছে টাকার বিনিময়ে লুডুর জুয়া। জমজমাট এই লুডু জুয়ায় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার যুবসমাজ নষ্টের পথে যাচ্ছে। এতে এলাকায় চুরি-ডাকাতিসহ বিভিন্ন ধরনের সামাজিক অবক্ষয় বৃদ্ধি পাবে।
এবিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুকুমার বিশ্বাস জানান, মোবাইল তো সকলের হাতে আছে, কিন্তু কখন কোন সময় বা কোন স্থানে এরা মোবাইলে লুডুর জুয়া খেলছে তা ধরা অসম্ভব। এবিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। আমরা বিয়ষটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবো। তিনি আরও বলেন, বিপদগামী যুবসমাজকে সুপথে আনার জন্য আমরা খেলাধুলার ওপর জোর নজর দিয়েছি। আমরা ক্রীড়া সামগ্রী পর্যন্ত কিনে দিয়ে তাদেরকে মাঠে আনার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।


আরো দেখুন

চুয়াডাঙ্গায় সুধীজনদের সাথে মতবিনিময়সভায় নবাগত জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস

  রাষ্ট্রের সেবক হিসেবে ভালো কাজের দ্বারা জনগণের মনে থাকতে চাই স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা …

Loading Facebook Comments ...