পাকিস্তানকে গুড়িয়ে ফাইনালে ভারত

স্টাফ রিপোর্টার: কোনো অঘটন নয়, রেকর্ড সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত প্রত্যাশিতভাবেই জায়গা করে নিলো সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে। পাকিস্তানকে ৩-১ গোলে বিধ্বস্ত করে ফাইনালের টিকেট কেটেছে দলটি। গতকাল বুধবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিলো দল দুটি। এর আগে একই দিন প্রথম সেমিফাইনালে নেপালকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে মালদ্বীপ। আগামী শনিবার ভারত ও মালদ্বীপ সাফের দ্বাদশ আসরের শিরোপার জন্য লড়বে। ফুটবলে ভারত-পাকিস্তান লড়াই কখনোই যুদ্ধের বারতা ছড়ায় নি। ২৩ বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে ভারত যেখানে জিতেছে ১৪ ম্যাচে, পাকিস্তান জয় পেয়েছেন সেখানে মাত্র ৩ ম্যাচে। তবে এদিন ভারতের মুখোমুখি হওয়ার আগে একটা প্রেরণা ছিলো পাকিস্তানের। ২০০৩ সালে ঢাকার মাঠে ভারতকে হারিয়েছিলো পাকিস্তান। তাছাড়া তিন বছরের নির্বাসন কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরে সাফে দারুণ খেলছিলো দেশটি। কিন্তু অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে গড়া ভারতীয়দের কাছে পাত্তা পায়নি আন্তেনিও নোগেইরার দল। বরং ১১তম বারের মতো সাফের ফাইনালে পা দিলো ভারত। শুরুতে অবশ্য প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করল পাকিস্তান। প্রথমার্ধে গোল হজম করে সফলও তারা। যার কৃতিত্ব পাকিস্তান গোলরক্ষক ইউসুফ ইজাজ বাটের। দারুণ সব সেভ করছিলেন তিনি। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ভারত কাঙ্ক্ষিত গোল আদায় করে নেয়। ৪৮ মিনিটে মানভির সিং প্রথম গোলমুখ খুলেন। জোড়া গোল করেছেন এই তারকা। ৬৯ মিনিটে দলের ব্যবধান ২-০ করেন তিনি। ৮৪ মিনিটে সুমিত পাস্সি গোল করলে ভারতের জয় একরকম নিশ্চিত হয়ে পড়ে। তবে এর কিছু পরেই মাঠে উত্তাপ ছড়ায়। ভারতের লালিয়ানজুয়ালাকে ফাউল করেন বশির। এসময় হাত চালান লালিয়ানজুয়ালা। এরপর যাকে মহসিন আলি ধাক্কা মারেন। ফলে লালিয়ানজুয়ালা ও মহসিন দুজনকেই লালকার্ড দেখান রেফারি। ১০ জনের দল নিয়ে বাকী সময়টুকু পার করে দুই দল। এরমাঝে পাকিস্তান একটি গোল পরিশোধও করে। ৮৭ মিনিটে গোলটি করেন বশির।


আরো দেখুন

সহজ জয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার

মাথাভাঙ্গা মনিটর: আশা জাগালেও বড় ইনিংস খেলতে পারলেন না ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামসরা। অনুজ্জ্বল ব্যাটিংয়ের …

Loading Facebook Comments ...