চুয়াডাঙ্গার সাংবাদিকদের কল্যাণে যা দরকার তা করতে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ :দিলীপ কুমার আগরওয়ালা

স্টাফ রিপোর্টার: এফবিসিসিআই’র পরিচালক বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড লিমিটেডের ব্যবস্থপনা পরিচালক ইউনিয়ন গ্রুপ ও তারা দেবী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান চুয়াডাঙ্গার কৃতিসন্তান দিলীপ কুমার আগরওয়ালা ব্যবসা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ সিআইপি নির্বাচিত হওয়ায় চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক সমিতির পক্ষে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে চুয়াডাঙ্গা সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে দাতা সদস্য দিলীপ কুমার আগরওয়ালাকে সংবর্ধনা জানানো হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জসিম উদদীন। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কলিমুল্লাহ, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু, আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুরুল ইসলাম ও সংবর্ধিত অতিথি দিলীপ কুমার আগরওয়ালা। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও গীতাপাঠের পর ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক রাজীব হাসান কচি, শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম সনি।
শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক তছিরুল আলম মালিক ডিউক, নাজমুল হক স্বপন, ডা. আব্দুল আজিজ, কামাল উদ্দিন আহমেদ, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাব সভাপতি শাহ আলম মন্টু, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. সোহরাব হোসেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আ.স.ম. আব্দুর রউফ, তারা দেবী ফাউন্ডেশনের চুয়াডাঙ্গা জেলা ইউনিট সভাপতি অধ্যাপক শেখ সেলিম, চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ইয়াকুব হোসেন মালিক, চুয়াডাঙ্গা সাহিত্য পরিষদ সভাপতি মোহাম্মদ তৌহিদ হোসেন প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জসিম উদদীন বলেন, আজকের সংবর্ধিত অতিথি শুধু সিআইপি নির্বাচিত হননি তিনি ইতোমধ্যেই এনডিসি কোর্স সম্পন্ন করেছেন। খুব কম সংখ্যক বেসামরিক ব্যক্তিই এই কোর্স সম্পন্ন করার সুযোগ পায়। এটি তার মেধা চর্চার বিরল প্রতিভা। আমি তার এই কৃতিত্বের জন্য স্যালুট জানাই। তিনি আরও বলেন, দিলীপ কুমার আগরওয়ালা সাধারণ ব্যক্তি নন তিনি এক অসাধারণ ব্যক্তিত্ব।
বিশেষ অতিথি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কলিমুল্লাহ বলেন, চুয়াডাঙ্গায় অনেক বিত্তবান মানুষ আছেন যারা দিলীপ কুমারের পদাঙ্ক অুনসরণ করে মানবতার সেবাই এগিয়ে আসতে পারেন। তিনি তারা দেবী ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে যে সমস্ত কাজ করছেন তা সকল মহলের কাছে প্রশংসিত হয়েছে। অপর বিশেষ অতিথি চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু বলেন, দিলীপ দাদা বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে অনেক অনেক সম্মানিত ব্যক্তি। তিনি আমাদের গর্ব। আমরা জানি তিনি সরকারের অনেক উচ্চ পদস্থ ব্যক্তিবর্গের সাথে চলাফেরা করেন। সে কারণে তার কাছে আমাদের দাবি তিনি যেন চুয়াডাঙ্গায় শিল্প কলকারখানা গড়ে তুলে এলাকার বেকার সমস্যার সমাধানে এগিয়ে আসেন।
সংবর্ধিত অতিথির ভাষণে দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, আপনাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আমার পান্না সিনেমাহল সাংস্কৃতিক কর্মকা-ের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। চুয়াডাঙ্গা সাংবাদিকদের কল্যাণের জন্য যা যা করার তাই করতে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তিনি চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের কাজ করার সুবিধার্থে এসি দেয়ার ঘোষণা দেন। তিনি আরও বলেন, আমি চুয়াডাঙ্গার দিলীপ। আজকের এই সিআইপি কার্ড চুয়াডাঙ্গাবাসীকে উৎস্বর্গ করলাম। এর থেকে কোনো সুযোগই আমি আজ থেকে গ্রহণ করবো না। দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, চুয়াডাঙ্গার একজন মানুষও যাতে বিনা চিকিৎসায় মারা না যায় তার জন্য আমি একটি ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স দিয়েছি। শুক্রবার আর একটি ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স আলমডাঙ্গা উপজেলাবাসীর জন্য দেবো। যাতে প্রসূতি, মুক্তিযোদ্ধা, দুস্থ গরিব রোগী সাধারণ দ্রুত হাসপাতালে পৌঁছুতে পারেন। তিনি আরও বলেন, আমাদের এলাকায় গ্যাস নেই তাই শিল্প কলকারখানা গড়ে উঠছে না। তবে আমি বগুড়া চেম্বারের সাথে কথা বলেছি। তারা চুয়াডাঙ্গা চেম্বার প্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় করে এ এলাকায় শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার ব্যাপারে সচেষ্ট হবে। বগুড়ার মতো চুয়াডাঙ্গায় ছোট ছোট শিল্প কলকারখানা গড়ে তুলে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পদক্ষেপ নিতে আমি আগ্রহী।
দিলীপ কুমার আগরওয়ালা আরও বলেন, চুয়াডাঙ্গার আর্থসামাজিক উন্নয়নে আমার মতো ধনাঢ্য ব্যক্তিরা এগিয়ে আসলে আত্মমানবতার সেবাই চুয়াডাঙ্গা বাংলাদেশের মডেল হতে পারে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সৌম্য জিতা শ্রুতি।


আরো দেখুন

অবৈধ দখলদারদের কবলে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহর

স্টাফ রিপোর্টার: অবৈধ দখলদারদের কবলে পড়েছে চুয়াডাঙ্গা জেলা শহর। চলাচলের সুবিধার্থে সড়ক সম্প্রসারণ করা হলেও …

Loading Facebook Comments ...