চুয়াডাঙ্গা ডিঙ্গেদহ সোনালী ব্যাংকে বিদ্যুত বিল না দিতে পেরে ভোগান্তি

পুনরায় সোনালী ব্যাংকে বিদ্যুত বিল নেয়ার দাবী ভুক্তভোগী গ্রাহকদের
ডিঙ্গেদহ প্রতিনিধি: বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ও সোনালী ব্যাংকের মধ্যকার সম্পাদিত চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় সোনালী ব্যাংক কর্তৃক পল্লী বিদ্যুত গ্রাহকদের বিল না নেয়ায় ব্যাপক হয়রানির ভোগান্তি হচ্ছে শংকরচন্দ্র, পদ্মবিলা ও বেগমপুর ইউনিয়নের গ্রাহকগণ। গতকাল রোববার থেকে বিদ্যুত বিল নেয়া বন্ধ করে দিয়েছে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। বিদ্যুত বিল প্রদানে হয়রানি নিরোধে পুনরায় চুক্তি সম্পাদন করে গ্রাহকদের বিল নেয়ার জন্য দাবী জানিয়েছে ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা। এ ব্যাপারে গতকাল রোববার ডিঙ্গেদহ সোনালী ব্যাংক শাখায় সরেজমিনে দেখা যায় অসংখ্য গ্রাহক বিদ্যুত বিল দেয়ার জন্য ব্যাংকে ভীড় জমায়। পরে বিল না দিতে পেরে কয়েকজন গ্রাহক জানান, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে গ্রাহকদের সুবিধার জন্য পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড সোনালী ব্যাংকের সাথে চুক্তি করে বিল নেয়া শুরু করে। সে মোতাবেক শংকরচন্দ্র, পদ্মবিলা ও বেগমপুর ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার গ্রাহক ডিঙ্গেদহ সোনালী ব্যাংক শাখায় বিদ্যুত বিল প্রদান করে আসছে। বিদ্যুত বিল এলাকার ব্যাংক শাখায় নেয়ার ফলে গ্রাহকগণ বিল প্রদান করে বাড়ীর কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। কিন্তু গতকাল হতে বিদ্যুত বিল নেয়া বন্ধ করে দেয়ার ফলে ব্যাপক ভোগান্তির শিকার হচ্ছে গ্রাহকগণ। এ অবস্থায় অবিলম্বে প্রতিটি সোনালী ব্যাংক শাখায় বিদ্যুত বিল নেয়ার দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকগণ।
ডিঙ্গেদহ সোনালী ব্যাংক শাখার প্রিন্সিপাল অফিসার আব্দুল্লা আল মারুফ বলেন, সোনালী ব্যাংকের সাথে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ৩০জুন ২০১৮। মৌখিক নির্দেশনা মোতাবেক অদ্যবদি গ্রাহকদের বিল নেয়া হচ্ছিলো। কিন্তু গতকাল রোবাবর সকালে বিদ্যুতায়ন বোর্ড থেকে চিঠি আসে গ্রাহকদের বিল না নেয়ার জন্য। এ কারনে গ্রাহকদের বিল নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি জানার জন্য পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম হাবিবুর রহমানের নিকট মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানতে চাইতে তিনি বলেন, গ্রাহকদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে ঢাকায় বিদ্যুতায়ন বোর্ড সোনালী ব্যাংক প্রধান কার্যালয়ের সাথে চুক্তি করেন। চুক্তির মেয়াদ ছিলো গত ৩০জুন ২০১৮ পর্যন্ত। সে মোতাবেক সারাদেশে সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে গ্রাহকদের বিদ্যুত নেয়া হচ্ছিলো। ব্যাংকের সাথে মেয়াদ শেষ হওয়ায় বিল নেয়া সম্ভব হবে না। যদি সোনালী ব্যাংকের সাথে পুনরায় চুক্তি হয় তবে আবার সোনালী ব্যাংক হতে বিল নেয়া হবে। তবে গ্রাহকগণ নিজেদের বিকাশ একাউন্ট থেকে প্রতি মাসে দুটি বিল প্রদান করতে পারবেন। অথবা সোনালী ব্যাংক ছাড়া যে কোনো ব্যাংক শাখায় বিদ্যুত বিল প্রদান করতে পারবেন।


আরো দেখুন

চুয়াডাঙ্গা জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিকসভায় জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস

  আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে সম্মিলিত প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার আহ্বান স্টাফ রিপোর্টার: ‘আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নতির ধারা …

Loading Facebook Comments ...