কাঁদাপানিতে ঢেকে যাওয়ার উপক্রম কে এই বৃদ্ধ?

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: বছরের পর বছর রোদ-বৃষ্টি-ঝড়ে রাস্তায় বসবাস করে আসছেন অশীতিপর অজ্ঞাত পরিচয় এই বৃদ্ধ। গত দুই-তিন দিনের প্রচ- বৃষ্টিতে কাঁদাপানিতে ঢেকে যাওয়ার উপক্রম হয়েছেন। তবুও তিনি বৃষ্টির মধ্যে শুয়ে আছেন কম্বল গায়ে দিয়ে। তাকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি স্থানীয় প্রশাসন ও এলাকাবাসী। গত বুধবার বিকেলে প্রচ- বৃষ্টির মধ্যে তাকে দেখা গেছে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কে শৈলকুপার ভাটই বাজারের পুলিশ ফাঁড়ির সামনে। কাঁদাপানিতে শুয়ে কম্বল গায়ে কাঁপছেন। তবুও কেউ ফিরেও তাকাচ্ছেন না তার দিকে। বৃষ্টির কাঁদাপানিতে সারা শরীর একাকার। বৃষ্টির মধ্যে সড়কে যানবাহন চলাচলের ফলে কাঁদাপানি ছুটে তার মাথার লম্বা লম্বা চুল ও মুখম-লে ভরে গেছে। তবুও স্থান ত্যাগ করছেন না ওই বৃদ্ধ। তবে পাগল হিসেবে পরিচিত ওই বৃদ্ধ বর্তমানে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।
ভাটই এলাকার অবসরপ্রাপ্ত উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জালাল বিশ্বাস জানান, তিনিও বেশ কয়েক বছর ধরে ওই বৃদ্ধকে তাদের এলাকায় দেখছেন। সারাদিন ঘোরাঘুরি করে বাজারের যে কোনো স্থানে শুয়ে থাকেন। গত এক সপ্তাহ ধরে ওই বৃদ্ধ ভাটই পুলিশ ফাঁড়ির সামনে মহাসড়কে বৃষ্টির মধ্যে একটি কম্বল গায়ে শুয়ে আছেন। বৃষ্টিতে কাঁদাপানিতে প্রায় ঢেকে যাওয়ার উপক্রম। তার এ অবস্থা হলেও এখন পর্যন্ত তাকে উদ্ধারের জন্য কেউ এগিয়ে আসেননি।
ভাটই পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই রেজওয়ানুল হক বলেন, পুলিশ ফাঁড়ির সামনে মহাসড়কে এক অজ্ঞাত পরিচয় বৃদ্ধকে প্রচ- বৃষ্টির মধ্যে কাদাপানিতে কম্বল গায়ে শুয়ে থাকতে দেখেছি। তাকে মাঝে মধ্যে খাবার দিলে খাবার নেন। আমি এখানে নতুন এসেছি। তবে শুনেছি বৃদ্ধ লোকটি এ এলাকায় বেশ কয়েক বছর ধরে রয়েছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More