দর্শনা পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে তিন প্রার্থীর নির্বাচনী ব্যয় ৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা!

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার দর্শনা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মতিয়ার রহমান ৩ লাখ টাকা, বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান ২ লাখ টাকা এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আশকার আলী ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয় করবেন বলে হলফনামা উল্লেখ করেছেন। এছাড়া, হাবিবুর রহমান ও আশকার আলীর নামে আদালতে মামলা চলমান থাকলেও মামলা নেই মতিয়ার রহমানের নামে। দর্শনা পৌরসভায় আগামী ৩০ জানুয়ারি শনিবার ব্যালেট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচন কমিশনে প্রদত্ত হলফনামায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মতিয়ার রহমান নির্বাচনী ব্যয় ৩ লাখ টাকা বলে উল্লেখ করেছেন। এ টাকায় নির্বাচনী ক্যাম্প, মাইকিং, পোস্টার ছাপা ও শ্রমিকদের ব্যয় নির্বাহ করবেন। তিনি এইচএসসি পাস। তিনি কৃষি থেকে ৩০ হাজার টাকা, অন্যান্য থেকে ৩০ হাজার টাকা, মেয়র হিসেবে সম্মানী ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা, নগদ আছে ৯ হাজার ১৬ টাকা, ব্যাংকে আছে ৯৮৪ টাকা, ৪০ হাজার টাকা মূল্যের ১টি মোটর সাইকেল, স্বর্ণ ১০ ভরি (স্ত্রী), ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী ৬০ হাজার টাকা, আসবাবপত্র ৪০ হাজার টাকা এবং অন্যান্য ব্যবসায় বিনিয়োগ ১৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান নির্বাচনী ব্যয় ২ লাখ টাকা উল্লেখ করেছেন। এ টাকায় নির্বাচনী ক্যাম্প, মাইকিং, পোস্টার ছাপা ও শ্রমিকদের ব্যয় নির্বাহ করবেন। তিনি এইচএসসি পাস। তার নামে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুটি মামলা আছে এবং তিনি ওই মামলায় জামিনে আছেন। তিনি ব্যবসা থেকে ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা, নগদ ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা, ১ লাখ ৪৩ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ১টি মোটর সাইকেল, স্বর্ণ ৭ ভরি (স্ত্রী), কৃষি জমি ৫ বিঘা, অকৃষি জমি ২০ কাঠা এবং স্ত্রীর চাকরি থেকে ২ লাখ ৩৭ হাজার ৭২০ টাকা আয় রয়েছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী আশকার আলী হলফনামায় নির্বাচনী ব্যয় ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা উল্লেখ করেছেন। এ টাকায় নির্বাচনী ক্যাম্প, মাইকিং, পোস্টার ছাপা ও শ্রমিকদের ব্যয় নির্বাহ করবেন। তিনিও এইচএসসি পাস। তার নামে একটি মামলা বিচারাধীন আছে। তার ব্যবসা থেকে আয় ৬ লাখ ১৪ হাজার টাকা, নগদ আছে ৫০ হাজার টাকা, ব্যাংকে জমা ২ লাখ ৬৯ হাজার টাকা, কৃষি জমি ২ বিঘা, অকৃষি জমি ৩ বিঘা, পাকা বাড়ি ১ তলা, ১টি মোটর সাইকেল, স্বর্ণ ৬ ভরি , ইলেট্রনিক্স সামগ্রী ৩০ হাজার টাকা এবং আসবাবপত্র ৬০ হাজার টাকা অন্যান্য ব্যবসায় বিনিয়োগ ৮ লাখ টাকা।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা তারেক আহমেমদ বলেন, নির্বাচনী হলফনামায় কেউ যদি অসত্য তথ্য প্রদান করেন তাহলে সেটি প্রমাণিত হলে নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের পরেও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত : দর্শনা পৌরসভা নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ৫২০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার এবং মহিলা ভোটার ১৩ হাজার ৯৪৮ জন। ৯টি ওয়ার্ডে ভোট কেন্দের সংখ্যা ১৬টি এবং ভোটকক্ষের সংখ্যা ৮২টি। অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র না থাকলে অস্থায়ী ভোট কক্ষের সংখ্যা ৭টি।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More