শারিরিক প্রতিবন্ধী শিশুকে হুইল চেয়ার দিয়ে আবারও মানতবার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম শারিরিক প্রতিবন্ধী শিশু একটি হুইল চেয়ার কিনে দিয়ে আবারও মানতবার দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। তিনি গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে ওই শিশুকে হুইল চেয়ার উপহার দেন। পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বাংলাদেশ পুলিশ পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রকার সামাজিক, মানবিক ও উৎসাহমূলক কার্যক্রমে ভূমিকা রেখে চলেছেন। তারই অংশ হিসেবে মানবিক পুলিশ সুপারখ্যাত জাহিদুল ইসলাম সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে একের পর এক গণমুখী কার্যক্রম গ্রহণ করছেন।

সূত্র জানায়, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম একটি ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট দেখে দর্শনা থানার গড়াইটুপি গ্রামের আনারুলকে গত ১ সেপ্টেম্বর একটি হুইল চেয়ার প্রদান করেন। পরদিন আলমডাঙ্গার গোপীনগর গ্রামের সুবিধা বঞ্চিত খায়রুন নেছাকেও একটি হুইল চেয়ার প্রদান করেন। বিষয়গুলো জেলা পুলিশ চুয়াডাঙ্গার ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়। তাছাড়া সংবাদটি বিভিন্ন আঞ্চলিক পত্রিকায় প্রকাশিত হলে পুলিশ সুপারের মানবিক বিষয়টি নজরে আসে চুয়াডাঙ্গা জেলাবাসীর। এরই ধারাবাহিকতায় আলমডাঙ্গা উপজেলা  গোপীনগর গ্রামের আবু মুছার ছেলে সাঈদ হোসেন সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করে দামুড়হুদা উপজেলার রামনগর গ্রামের জন্মগত শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশু রাফিয়া খাতুনকে (১২) একটি হুইল চেয়ার প্রদানের বিষয়ে কথা বলেন।  গতকাল রোববার বেলা ১১ টার দিকে শিশু রাফিয়াকে তার পরিবারের লোকজন পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে এলে নাটুদাহ ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলামের আর্থিক সহযোগিতায় একটি হুইল চেয়ার প্রদান করেন। এ সময় রাফিয়া খাতুনের মায়ের মুখে কৃতজ্ঞতার এক অকৃত্রিম হাসি ফুঁটে ওঠে। পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, সমাজের সর্বস্তরের সামর্থবান মানুষ যদি অসহায় সুবিধা বঞ্চিতদের দিকে একটু সুদৃষ্টি দেয়, তাহলে আমাদের সমাজে সুবিধাবঞ্চিতদের মুখেও হাসি ফোঁটানো সম্ভব। এসময় তিনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ সকল বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলাবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More