হাসাদাহ বাজারে আড়ত থেকে পাট চুরি

হাসাদাহ  প্রতিনিধি: জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ বাজার থেকে রাতে আধাঁরে আড়ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ঘরের তালা ভেঙে ৫০ মণ পাট ও ৪ মণ খেজুরের গুড়সহ দেড় লাখ টাকার  মালামাল  চুরি হয়েছে। বাজারে নাইটগার্ড থাকার পরেও  চুরি হওয়ায় বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। এবিষয়ে হাসাদাহ পুলিশ ক্যাম্পে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ব্যবসায়ীক মশিয়ার রহমান।

লিখিত অভিযোগে  জানা গেছে, গত শুক্রবার  হাসাদাহ বাজারের হাইস্কুলের সংলগ্ন স্থানে এমআর ট্রেডার্স নামক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আড়তদার হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করছেন। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় আড়ৎদার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যান। শনিবার সকাল ৮টার দিকে আড়ৎ ঘর খুলতে দেখেন আড়ৎ ঘরের দরজার দুটি তালা ভাঙা অবস্থায় মাটিতে পড়ে রয়েছে। ভেতরে গিয়ে দেখেন ভেতরে রাখা ৩০ মণ গুটিপাট মূল্য ৮০ হাজার টাকা ২০ মন ধলিপাট মূল্য ৬০ হাজার টাকা এবং কন্টিনার খেজুর গুড় ৪ মণের মূল্য ১০ হাজার টাকা মোট দেড় লাখ টাকার মালামাল চুরি হয়ে যায়।  বাজারের একাধিক ব্যবসায়ীর অভিযোগ, বাজারে নিয়মিত ডিউটির জন্য ৪ জন নাইট গার্ড থাকার পরেও কিভাবে বাজার থেকে চুরি হয়। আমাদের মাসিক ঘর ভাড়া ঠিকমতো নিয়ে যাচ্ছে তারা। চুরি হচ্ছে; তাহলে ৪ জন নাইটগার্ড কী করে ঘুমান তারা। নাইটগার্ড কামাল বলেন, আমরা ৪জন রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত ডিউটি করে চলে যায়। সকালে শুনি  যে, বাজার থেকে মশিয়ারের আড়ৎ থেকে  চুরি হয়েছে। এ বিষয়ে হাসাদাহ বাজার কমিটির আহ্বায়ক কমিটির রেজাউল হক ডাবলু এ প্রতিবেদককে বলেন, রাতে ডিউটি চলাকালীন অবস্থায় যদি বাজারে চুরি হয় তাহলে ঠিকমতো ডিউটি হচ্ছে  না। হাসাদাহ পুলিশ ক্যাম্পের এসআই আমিরুল ইসলাম এ প্রতিবেদকে বলেন, মশিয়ার রহমানের আড়ৎ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পাটসহ বেশ কিছু মালামাল চুরি হয়েছে। এ বিষয়ে জীবননগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগ পত্রটি আমার কাছে দেয়া হয়েছে। কিন্তু চুরির বিষয়টি রহস্য মনে হচ্ছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More