কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের আতিয়ার রহমানকে গলা কেটে হত্যা মামলায় দুই আসামির যাবজ্জীবন ও অর্থদ- দিয়েছেন আদালত। এ সময় তাদের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদ-ের আদেশ দেয়া হয়। অন্যজনকে বেকসুর খালাস দেন আদালত। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল বিশেষ দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় দ-প্রাপ্ত আছান আলী শেখ আদালতে উপস্থিত ছিলো। সাজাপ্রাপ্তরা হলো- আছান আলী শেখ উত্তর চাঁদপুর গ্রামের কফিল উদ্দিন শেখের ছেলে ও মো. সেলিম পলাতক রয়েছে। তিনি লাহিনী গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে।

আদালতসূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২২ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টায় কুমারখালী উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের মৃত জব্বার ম-লের ছেলে আতিয়ার রহমানকে পাওনা টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে সৃষ্ট দ্বন্দ্বের জের ধরে আসামিগণ পরস্পর যোগসাজসে এবং পূর্বপরিকল্পিত হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরদিন সকালে (২৩ অক্টোবর) পাশর্^বর্তী ধর্মপাড়া গ্রামের মাঠ থেকে গলাকাটা অবস্থায় নিহত আতিয়ারের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই হাবিবুর রহমান  বাদী হয়ে ২৪ অক্টোবর কুমারখালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্ত শেষে আসামি আছান আলী শেখ, মো. সেলিম ও রেজাউল ওরফে রেজা নামের তিন জনের বিরুদ্ধের হত্যাকা-ে জড়িত অভিযোগ এনে দ.বি. ৩০২/৩৪ ধারায় আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে পুলিশ।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ বিশেষ আদালতের সরকারি কৌসুলি (পিপি) অ্যাড. আব্দুল হালিম জানান, কুমারখালী থানার ক্লু-লেস এই হত্যা মামলাটির রহস্য উদঘাটনসহ দাখিলকৃত অভিযোগে চার্জ গঠন ও সাক্ষ্য শুনানি শেষে আসামির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামি আছান আলী শেখ ও মো. সেলিমকে যাবজ্জীবন কারাদ-সহ প্রত্যেকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সাজার আদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আদালত।

একই সাথে আসামি রেজাউল ওরফে রেজার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More