চুয়াডাঙ্গায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সদর হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার হস্তান্তর

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সদর হাসপাতালে ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল বিকেল ৪টার চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের নির্দেশনায় চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. মারুফ হোসেন ও চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. এএসএম ফাতেহ আকরামের নিকট ১০টি সিলিন্ডার হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান। টোটন জোয়ার্দ্দার বলেন, করোনাকালীন এ সময়ে আমরা আছি আপনার পাশে। দেশব্যাপী মহামারী করোনা ভাইরাসের ব্যাপক বিস্তারে মানুষ অসহায় হয়ে পড়েছে। তেমনি এই মহামারী করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত চুয়াডাঙ্গা জেলাতেও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমতাবস্থায় চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ সদর হাসপাতালসহ জেলার অন্যান্য হাসপাতালগুলোতেও ব্যাপক কার্যক্রম শুরু করেছে। এরই মধ্যে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সেবা করার জন্য সদর হাসপাতালে ১৫জন স্বেচ্ছাসেবকসহ একজন সুপারভাইজার দেয়া হয়েছে। সদর হাসপাতালে প্রতিদিন ১১০জনের তিনবেলা খাবার দেয়া হচ্ছে এবং ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দেয়া হয়েছে যা চলমান থাকবে। সমাজের বিত্তবান, ব্যবসায়ী ও দানশীল ব্যক্তিরা যেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের পাশে থেকে সহযোগিতা করার আহবান করেছেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী ও বিপ্লবী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জাতীয় সংসদের সাবেক হুইপ ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য জননেতা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি।
অপরদিকে, চুয়াডাঙ্গা টেলিকম ও বন্যা এন্টার প্রাইজের উদ্যোগে সদর হাসপাতালে ১০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, চুয়াডাঙ্গা টেলিকমের স্বত্বাধিকারী মো. রিংকু জোয়ার্দ্দার ও বন্যা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. মখলেছুর রহমান চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. মারুফ হোসেন ও চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. এএসএম ফাতেহ আকরামের নিকট সিলিন্ডারগুলো হস্তান্তর করেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More