চুয়াডাঙ্গায় বিদ্যালয়ের টাকা আত্মসাত মামলায় প্রধান শিক্ষক জেলহাজতে

ডিঙ্গেদহ প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা সদরের ডিঙ্গেদহ সোহরাওয়ার্দ্দী স্মরণী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক সাইনুল হোসেনকে বিদ্যালয়ের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। গত ৩১ মার্চ আদালতে হাজির হলে চুয়াডাঙ্গা সদর আমলী আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। চুয়াডাঙ্গা সদরের ডিঙ্গেদহ সোহরাওয়ার্দ্দী স্মরনী বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক সাইনুল হোসেন পুনরায় বিদ্যালয়ের টাকা আত্মসাত করলে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য শওকত আলী বাদি হয়ে গত ৮ ফেব্রæয়ারি চুয়াডাঙ্গা আমলী আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগসূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালে সাইনুল হোসেন সোহরাওয়ার্দ্দী স্মরনী বিদ্যাপীঠের প্রধান হিসেবে চাকরিতে যোগদান করেন। চাকরিতে যোগদান করার পরপরই বিভিন্ন অপকৌশলের মাধ্যমে বিদ্যালয় হতে গত ১/২/২০১৪ তারিখ হতে ৩১/১২/২০১৫ সাল পর্যন্ত ৩ লাখ ৬৬ হাজার ২৬৩ টাকা এবং ১/১/২০১৬ তারিখ হতে ২৭/৫/২০১৭ তারিখ পর্যন্ত ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৪২৩ টাকাসহ সর্বমোট ৮ লাখ ৩২ হাজার ৬৮৬ টাকা আত্মসাৎ করেন। ৩০/৯/২০১৭ তারিখের অডিট প্রতিবেদনে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি ধরা পড়ে এবং তৎকালীন সভাপতি হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে গত ২/১১/২০১৭ তারিখে প্রধান শিক্ষক সাইনুল ইসলামের বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে প্রধান শিক্ষক সাইনুল ইসলাম ৭ লাখ টাকা ফেরত করে ৩০০ টাকার ননজুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গিকার করে ৪/৭/২০১৯ তারিখে পুনরায় স্ব-পদে যোগদান করেন। চাকরিতে যোগদান করার পরপরই প্রধান শিক্ষক সাইনুল ইসলাম বিদ্যালয় হতে পুনরায় ২লাখ ৯০ হাজার ২৩ টাকা আত্মসাৎ করেন। যা ১/১/২০২০ তারিখ হতে ২/৩/২০২১ তারিখ পর্যন্ত অডিট প্রতিবেদনে প্রমাণিত হয়। ম্যানেজিং কমিটি বার বার কারণ দর্শানোর নোটিশ ও টাকা ফেরতে তাগিদ দিলেও কোনো কর্ণপাত না করে নিজের মতো করে চলতে থাকে। এরই প্রেক্ষিতে গত ২৩/৫/২০২১ তারিখের ১৮১নং সভার মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক সাইনুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এরপর গত ১৩/১/২০২১ তারিখে বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারীদের পক্ষ থেকে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনাস্থা ও স্থায়ী বহিস্কারের জন্য সভাপতির বরাবর লিখিত অভিযোগ আনেন। সবকিছু বিবেচনা করে গত ৮/২/২০২২ তারিখ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য শংকরচন্দ্র ইউপি সদস্য শওকত আলী বাদী হয়ে বিদ্যালয়ের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে প্রধান শিক্ষক সাইনুল ইসলামের বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা আমলী আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন। গত ৩১ মার্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইনুল হোসেন আদালতে হাজির হলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেলহাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More