মৃত্যুর কাছে হার মানলেন মউক কর্মকর্তা আলমগীর

স্টাফ রিপোর্টার: মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কে বাসের ধাক্কায় আহত মউক’র প্রোগ্রাম অফিসার আলমগীর হোসেন পাঁচদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা গেছেন। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান তিনি।
নিহত আলমগীর হোসেন মেহেরপুর সদর উপজেলার হিজুলি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল হকের ছেলে। তিনি স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান মানব উন্নয়ন কেন্দ্র (মউক) এর জনস্বাস্থ্য প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক।
মানবউন্নয়ন কেন্দ্র মউকের প্রোগ্রাম অফিসার নাছিরা খাতুন তার মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে গত রোববার (২২ নভেম্বর) সন্ধ্যার দিকে মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কের অয়ন ফিলিং স্টেশনের সামনে চলন্ত বাসের ধাক্কায় আলমগীর হোসেন মারাত্মক আহত হন। আলমগীর হোসেন মোটরাসাইকেলে ওই পাম্পে তেল আনতে যাচ্ছিলেন। তেল পাম্পের কাছে পৌঁছুনো মাত্রই মেহেরপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া সোহাগ পরিবহনের একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে আলমগীর হোসেন রাস্তার পাশে ছিঁটকে পড়ে মারাত্বক আহত হন।
স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। সেখান থেকে রাজশাহী ও পরে তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই পাঁচ দিন চিকিৎসা শেষে মারা যান আলমগীর হোসেন। আলমগীর হোসেন দুই সন্তানের জনক বলে জানা গেছে।
মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খান জানান, আলমগীর হোসেন মারা গেছেন। নিহতের মরদেহ ঢাকা থেকে মধ্যরাতে মেহেরপুরের উদ্যেশ্যে রওনা দিয়েছে। পারিবারিকভাবে লিখিত দিলে তারপর আইনগত প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More