রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের ‘এ’ এবং ‘সি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ : মেধাতালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার ৭ মেধাবী মুখ

আব্দুস সালাম: রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদ সি ইউনিট এবং মানবিক অনুষদ এ ইউনিটের ফল প্রকাশিত হয়েছে। বিশ^বিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে গত রোববার বেলা ১টার পর সি ইউনিট এবং রাত ১১টার দিকে এ ইউনিটের ফল প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ। প্রাপ্ত ফলাফলে সি ইউনিটে চুয়াডাঙ্গার ৬জন মেধা তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন। এ ইউনিট থেকে একজন মেধা তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন বলে আমাদের হাতে তথ্য এসেছে। সুবিধাজনক অপেক্ষমাণ তালিকায় সি ইউনিট থেকে ৭জন এবং এ ইউনিটে চুয়াডাঙ্গার একজন রয়েছেন।
রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের সি ইউনিটে এক হাজার ৫৭২ আসনের বিপরীতে ৩৩ হাজার ৫৪৩জন ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন। এসব শিক্ষার্থীকে তিনটি গ্রুপে ভাগ করা হয়। সে হিসেবে প্রত্যেক গ্রুপে নির্ধারিত আসন সংখ্যা ছিলো ৫২৪টি করে। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৫ হাজার ২৮৪জন। এবার সি ইউনিটে চারটি অনুষদকে একত্রিত করা হয়েছে। অনুষদগুলো হলো বিজ্ঞান অনুষদ, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদ, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ ও কৃষি অনুষদ। বিজ্ঞান অনুষদে ৬৬০, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদে ৪৪৪, ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে ২৫৬ এবং কৃষি অনুষদে ২১২ আসন সংখ্যা ছিলো। অপরদিকে ‘এ’ ইউনিটে দুই হাজার ১৯ আসনের বিপরীতে প্রায় ৪৫ হাজার পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পান।
দৈনিক মাথাভাঙ্গার হাতে আসা তথ্য অনুযায়ী সি ইউনিট বা বিজ্ঞান অনুষদে যারা মেধাতালিকায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন, তারা হলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের এতিমখানা রোডের আনোয়ার হোসেন ও হোসনে আরার ছেলে নাফিউল হাসান। মেধা তালিকায় তার স্থান ২৫তম। স্কোর ৮৩ দশমিক ৮০। চুয়াডাঙ্গা হকপাড়ার মো. আকবর আলী ও রুবিনা ইয়াসমিনের ছেলে আসিফ আরাফাত। মেধাতালিতায় তার স্থান ৯৭তম। স্কোর ৭৮ দশমিক ১৫। চুয়াডাঙ্গা মালোপাড়ার মো. শহিদুল্লাহ বিন বেবি ও মোছা. আসমা আক্তার শিরিনের ছেলে আকিব শিহাব। মেধাতালিকায় তিনি রয়েছেন ১৮৭তে। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে মেধা তালিকায় পর্যায়ক্রমে রয়েছেন আলমডাঙ্গার জেহালা ইউনিয়নের গড়চাপড়া গ্রামের মো. আনোয়ারুল আজিম ও মোছা. ফেরদৌসি আরা খাতুনের মেয়ে আঁখি আজিম পাপড়ি, চুয়াডাঙ্গা ঈদগাহপাড়ার মো. রফিকুল আলম ও দিলরুবা খাতুনের মেয়ে সাবরিনা আলম উপমা এবং চুয়াডাঙ্গার গোপালনগর গ্রামের মো. জাহাঙ্গীর হোসেন ও মোছা. আশুরা বেগমের ছেলে মো. হেলাল উদ্দিন। এছাড়া ‘এ’ ইউনিট থেকে মেধা তালিকায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন দামুড়হুদা উপজেলার কানাইডাঙ্গা গ্রামের আব্দুল হামিদ ও হোসনে আরা বেগমের ছেলে আলিক হাসান। মেধাতালিকায় তার স্থান ২৯২তম।
এদিকে অপেক্ষমাণ তালিকায় সুবিধাজনক স্থানে রয়েছেন পর্যায়ক্রমে চুয়াডাঙ্গা কলেজপাড়ার কামরুল ফিরোজ ও জান্নাতুল ফেরদৌসের মেয়ে নাবিলা ফেরদৌস প্রাপ্তি, জোয়ার্দ্দারপাড়ার জাহিদ হাসান জোয়ার্দ্দার ও তাজনিন আরার মেয়ে জারিন আনজুম জোয়ার্দ্দার রমিতা, থানা কাউন্সিলপাড়ার অ্যাডভোকেট রেজাউল হক ও মোছা. নাজমা খাতুনের মেয়ে রোজলীন হক নেহা, পোস্ট অফিসপাড়ার (বর্তমান সার্কিটহাউজপাড়া মেহেরপুর) এএইচএম সাহীদুর রশিদ ও মোছা. পারুল পারভীনের মেয়ে জান্নাতুল মাওয়া টুকটুকি, দামুড়হুদা দশমিপাড়ার মো. উম্বাত আলী ও সোনিয়া সারমিনের মেয়ে ঈশিকা তাসনি মিম এবং সরোজগঞ্জ বাজারের মো. মনিরুজ্জামান সেলিম ও দিলরুবা পারভীন সীমার মেয়ে মিফতাহুল জান্নাত মৌমি। অন্যদিকে মানবিক বিভাগের ‘এ’ ইউনিটে সুবিধাজনক অপেক্ষমাণ তালিকায় আছেন দামুড়হুদার কানাইডাঙ্গা গ্রামের ফারুক হাসান ও শাহিনা আক্তারের ছেলে তানজিল হাসান। প্রসঙ্গত, মানবিক বিভাগের ফলাফল আমরা যেটুকু জানতে পেরেছি সেটিই লেখা হলো।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More