সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দারের বিরুদ্ধে মেয়র জিপু চৌধুরীর সংবাদ সম্মেলন

চুয়াডাঙ্গায় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ কয়েকজন লাঞ্ছিত

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী জিপু। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পৌরসভা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মেয়র অভিযোগ করে বলেন, দুপুরে এমপি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ও তার সঙ্গে থাকা লোকজন চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় এসে চড়াও হন। এসময় এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দার জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জানিফসহ কয়েকজনকে লাঞ্ছিত ও লাথি মারেন এবং পৌরসভায় তালা ঝুলিয়ে দেয়ার হুমকি দেন।

মেয়র জিপু তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘বিগত কয়েক বছরে পৌরসভার নানা উন্নয়ন কাজে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। এমনকি উন্নয়নকাজ বন্ধ করতে নানাভাবে কাজ করেছেন। যা এখনও অব্যাহত রয়েছে। তারপরও আমরা চুপচাপ থেকেছি। জেলার মুরব্বি ও আমাদের নেতা হিসেবে সব মুখ বুজে সহ্য করেছি। গত ২১ জুলাই চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে জরুরি সভায়ও সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন গরিবদের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ চাল বিতরণে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকাশ্য সভায় চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় তালা ঝুলিয়ে দেয়ার হুমকি প্রদর্শন করেন। এরপর আজ মঙ্গলবার (গতকাল) স্বশরীরে এসে পৌরসভার লোকজনের ওপর চড়াও হন। এসময় তিনি জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ বেশ কয়েকজনকে লাঞ্ছিত ও লাথি মেরে পৌরসভায় তালা ঝুলিয়ে দেয়ার হুমকি দেন।’

লিখিত বক্তব্যে মেয়র জিপু চৌধুরী আরও বলেন, ‘ঈদুল আজহা উপলক্ষে জেলা প্রশাসক ভিজিএফ খাদ্য সহায়তার আওতায় ৪ হাজার ৬২১টি কার্ডের বিপরীতে ৪৬ দশমিক ২১০ মে.টন চাল বরাদ্দ প্রদান করেন। ওই চাল গত ১৬ জুলাই অনুষ্ঠিত ৪২ নম্বর বিশেষ সভায় পুনঃবণ্টনকৃত পত্র সংসদ সদস্য চুয়াডাঙ্গা-১’র কাছে প্রেরণ করা হয়। ওই চালের ডিও সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক মেয়র, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার নামে স্থানীয় খাদ্য গুদাম হতে আমার প্রতিনিধির মাধ্যমে উত্তোলন করে পৌরসভায় সংরক্ষণ করা হয়। এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার নামে বরাদ্দকৃত চালের অর্ধেক দাবি করে গত ২২ জুলাই চুয়াডাঙ্গা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জহুরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন হেলা পত্র দেন। যেহেতু আসন্ন ঈদুল আজহার আর মাত্র কয়েকদিন বাকি, তাই সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ভিজিএফ বরাদ্দকৃত চাল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরগণকে ট্যাগ অফিসারের মাধ্যমে বিতরণের তারিখ ও স্থান নির্ধারণ করা হয়। পত্রের অনুলিপি জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ মাননীয় সংসদ সদস্য ৭৯, চুয়াডাঙ্গা-১ ও তার প্রতিনিধিদের দেয়া হয়। পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আজ মঙ্গলবার (গতকাল) সকাল থেকেই কয়েকশ’ দুস্থ অসহায় মানুষ ভিজিএফ চাল নিতে পৌরসভা চত্বরে অবস্থান করছিলেন। দুপুরে মাননীয় সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ও তার সাথে থাকা লোকজন পৌরসভা চত্বরে এসে চড়াও হন। এসময় সংসদ সদস্য উচ্চস্বরে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। আমার লোকদেরকে ধাক্কা ও লাথি মারতে থাকেন। এ সময় পৌরসভা তালা মেরে বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেন। মোবাইলে ঘটনা অবহিত হয়ে আমি দ্রুত পৌরসভায় চলে আসি। আমি আমার লোকদেরকে শান্ত থাকতে বলি এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করি। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হস্তক্ষেপে মাননীয় সংসদ সদস্য ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।’

মেয়র ওবায়দুর রহমান চৌধুরী তার লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন ‘পৌরসভার সেবক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ও তার লোকজন কিভাবে আমাদেরকে হয়রানি করছেন, উন্নয়নকাজে বাধা দিচ্ছেন তা অনেকে জানেন। আমরা মনে করি এ ধরনের কাজ জাতীয় সংসদকে অবমাননার শামিল। আমরা আজকের ঘটনার বিচার দাবি করি। খুব শিগগিরই আমরা গোটা ঘটনা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করবো।’

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More