আজ শুভ বিজয়া দশমী : প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হবে দুর্গোৎসব

অশুভ বিনাশের প্রত্যয়ে দেবীর আরাধনা করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা

স্টাফ রিপোর্টার: আসছে বছর আবার হবে’ এই বার্তা দিয়ে মর্ত্য থেকে কৈলাসে ফিরে যাবেন দেবী দুর্গা। আজ শুভ বিজয়া দশমী। দুষ্টের দমন শিষ্টের পালনের বার্তা নিয়ে মর্ত্যে আসেন দেবী। দশমী তিথিতে দর্পণ বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দুর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা। পঞ্জিকা মতে, গতকাল বেলা ১১টা ১৩ মিনিটে দশমী শুরু হয়ে আজ বেলা ১১টা ৩১ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হবে দশমী তিথি। এর মধ্যেই দশমী বিহিত পূজা শেষ করবেন পুরোহিতরা। পূজা শেষে দর্পণ বিসর্জন করা হবে। উপবাস থেকে অঞ্জলি প্রদান করবেন ভক্তবৃন্দ। এবার দেবীর আগমন ঘটছে দোলায়। অর্থাৎ পৃথিবীতে মড়ক দেখা দেবে বলে বিশ্বাস সনাতন ধর্মাবলম্বীদের। দেবী যাবেন গজে। দেবী গজে গমনাগমন করলে পৃথিবীতে জলের সমতা বজায় থাকে এবং শস্য ফলন ভালো হয়। সুখ সমৃদ্ধিতে পরিপূর্ণ থাকে মর্ত্যভূমি। অশুভ বিনাশের প্রত্যয়ে গতকাল মহানবমী তিথিতে দুর্গতিনাশিনী দেবীর আরাধনা করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। গতকাল শুক্রবার সকালে বিহিত পূজার মাধ্যমে শুরু হয় নবমী পূজার আনুষ্ঠানিকতা। গতকাল সকাল থেকে ভক্তরা দেবীর চরণে অর্পণ করছেন পুষ্পাঞ্জলি। এ বছর পূজা শেষে প্রসাদ বিতরণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। অঞ্জলিতে ভিড় কমাতে করা হয়েছে ভার্চুয়ালি অঞ্জলির ব্যবস্থাও। ৫ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গাপূজার শেষ দিন। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় এ উৎসব। সোমবার সজল নয়নে ভক্তরা দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গার চরণে অঞ্জলি দিয়েছেন। দেবীর বন্দনায় প্রতিটি পূজাম-পে ছিলো বিষাদের ছায়া। ঢাকঢোল, কাঁসর-ঘণ্টাসহ বিভিন্ন বাদ্য, ধূপ আরতি ও দেবীর পূজা-অর্চনায় শুধুই ছিলো বিদায়ের সুর। সেই সঙ্গে ছিল করোনামুক্ত বিশ্বের প্রার্থনাও।

শাস্ত্রে আছে, নবমী পূজার মাধ্যমে মানবকুলে সম্পদ লাভ হয়। শাস্ত্র অনুযায়ী, শাপলা, শালুক ও বলিদানের মাধ্যমে রোববার দশভুজা দেবীর পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নীল অপরাজিতা ফুল নবমী পূজার বিশেষ অনুষঙ্গ। নবমী পূজায় যজ্ঞের মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে আহুতি দেয়া হয়। ১০৮টি বেলপাতা, আম কাঠ ও ঘি দিয়ে এ যজ্ঞ করা হয়। পূজা শেষে যথারীতি অঞ্জলি।

চুয়াডাঙ্গার হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজার মহানবমী উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার বেলা ১১টায় মহানবমী পূজা ও বিকেল ৩টায় হোমযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলার ম-পে ম-পে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। নারী-পুরুষ ম-পে গিয়ে ভক্তি জানান। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সদস্য সচিব কিশোর কুমার কুণ্ডু জানান, এ বছর চুয়াডাঙ্গা জেলায় মোট ১০৯টি মণ্ডপে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে।

সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার কুতুবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন পুজামণ্ডপ পরিদর্শন করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান আলী আহম্মদ হাসানুজ্জামান মানিক। এ সময় তিনি নগত অর্থও প্রদান করেন। গতকাল রোববার রাত ৮টার থেকে আলিয়ারপুর, হাসানহাটি, সিন্দুরিয়া ও বোয়ালিয়া পুজামন্ডপ পরিদর্শন শেষে প্রতিটি পুজাম-পের সভাপতি ও সম্পাদকের নিকট ব্যক্তি উদ্যোগে নগদ ১০ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কুতুবপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি হাজি মজিবর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জহুরুল আলম জবির, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান আশিক, রাকিবুল ইসলাম, কুতুবপুর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান জামাত আলী, রিনা পারভীন, ইউপি সদস্য হাসানুজ্জামান, ৮নং ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি আবু বাক্কা, ৯নং ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মগবুল বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ সোহাগ, কলিম উদ্দিন, আফাংগীর হোসেন প্রমুখ।

বেগমপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার মাখালডাঙ্গা ইউনিয়নের কুঁকিয়াচাঁদপুর গ্রামে হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে অষ্টমি ও নবমি দিনে বারআরি মন্দির পূজাকমিটি সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। গতকাল রোববার রাত ৯টার দিকে মাখালডাঙ্গা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি শ্রী বিশ্বজিৎ সাহার সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন চুয়াডাঙ্গা সদর থানার সেকেন্ড অফিসার লুৎফুল কবির। বিশেষ অতিথি ছিলেন হিজলগাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি সাইফুল আজম মিন্টু, এসআই আশিকুল ইসলাম, এসআই মেফাউল ইসলাম, পিএসআই হাদিউজ্জামন, সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার রফিক রহমান, পূজা কমিটির সভাপতি গৌতম কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক জয়দেব হালদার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আলী কদর মেম্বার, আওয়াল হোসেন, এনাফ বিশ্বাস, হাফিজুর রহমান, জাহিদ প্রমুখ।

গড়াইটুপি প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গার গড়াইটুপি ইউনিয়নের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান রাজু ইউনিয়নের ৫টি পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেছেন। গতকাল নবমীর দিনে গহেরপুর পূজাম-প, বাটিকাডাঙ্গা পূজাম-প, গড়াইটুপি শিব মন্দির, পালপাড়া পূজামণ্ডপ ও তেঘরী সার্বজনীন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন। এ সময় ব্যক্তিগতভাবে অর্থ প্রদান করা হয়। এ সময় সফরসঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা আ.লীগের শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক ফাতরুজ্জামান মাস্টার, সিনিয়র আ.লীগ নেতা আব্দুল খালেক মাস্টার, আব্দুল কুদ্দুস মাস্টার, উথলী ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মিজানুর রহমান, গড়াইটুপি ইউনিয়ন আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন, সাবেক তিতুদহ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আসাদুল ইসলাম রোকন, আ .লীগ নেতা শাহ আলম বাচ্চু, যুবলীগ নেতা শুসান্ত কর্মকার, নিতাই পাল, আশা আলী, নবনির্বাচিত মেম্বার জিল্লুর রহমান জুয়েল, আলম হোসেন প্রমুখ।

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জের খুদিয়াখালী দুর্গাপূজা মণ্ডপে শংক ও উলুরধ্বনী প্রতিযোগীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে এ পুরস্কার বিতরণ করা হয়। মন্দির কমিটির সভাপতি অশোক কুমার অধিকারীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেহালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান হান্নান, খাদিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাহিদুর রহমান জোয়ার্দ্দার লোটাস, স্বাধীন অধিকারী। উপস্থিত ছিলেন মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক অখিল অধিকারী, বিক্রম অধিকারী প্রমুখ।

অপরদিকে, আলমডাঙ্গার জেহালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ইউনিয়নের ৬টি পূজা মন্দির পরিদর্শন করেছেন। গতকাল রোববার বিকাল ৫ টার দিকে খুদিয়াখালী, বেতবাড়িয়া, পুটিমারী, গড়গড়ি ও মুন্সিগঞ্জ শ্রী শ্রী দূর্গা পূজা মন্দির পরিদর্শন করেন তারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেহালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান হান্নান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক মঈন উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা হাজি আবু তাহের, ইসলাম উদ্দিন, ইসতিয়াক আহমদ, শিপন আলী, মিঠুন আলী, বাবু, পয়সা, রবিউল হক, আবুল কালাম, আলম, তরিকুল, সিরাজুল, গোলাম মাস্টার, মুকুল, রতন, শুভ, মামুন, সিহাব, মিল্টন, আকাশ, বিপ্লব, আশাবুল, রাসেল, ইনামুল, খাইরুল, মতিয়ার, মানিক, রনি, ইমরান, সেলিম, রহিম, আরিফুল প্রমুখ। পূজামন্ডপ পরিদর্শন শেষে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা শেষে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসানুজ্জামান হান্নানের জন্মদিনের কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন করা হয়।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে, বিসর্জনের আগের রাতেই দর্শনার সবকটি পূজা মন্দির পরিদর্শন করেছেন দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান ও কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু সাঈদ। মেমনগর দাসপাড়া, সরদারপাড়া, পুরাতন বাজার, কেরুজ ও কেরুজ আমতলা পূজা মন্দির পরিদর্শনকালে মেয়র মতিয়ার রহমানের সাথে ছিলেন প্যানেল মেয়র রবিউল হক সুমন ও রেজাউল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক পৌর কমিশনার আব্দুর রাজ্জাক, মোজাহারুল ইসলাম, মোমিনুল ইসলাম, সোলায়মান, আবু ফয়সাল, দামুড়হুদা উপজেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি উত্তম রঞ্জন দেবনাথ, সাধারণ সম্পাদক মঙ্গল শান্তারা প্রমুখ। কেরুজ ও আমতলা পূজা মন্দির পরিদর্শনকালে মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু সাঈদের সাথে ছিলেন মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) শেখ শাহাব উদ্দিন, মহাব্যবস্থাপক (কৃষি) গিয়াস উদ্দিন ও মহাব্যবস্থাপক (অর্থ) রাব্বিক হাসান প্রমুখ।

দামুড়হুদা অফিস জানিয়েছে, শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে দামুড়হুদার চিৎলা-গোবিন্দহুদা পূজামণ্ডপে দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী অর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে। গতকাল রোববার রাত ৯টার দিকে দামুড়হুদা সদর ইউনিয়নের চিৎলা হালদার পাড়া ও গোবিন্দহুদা দাসপাড়া পূজামণ্ডপ পরিদর্শন শেষে পূজাম-প কমিটির সভাপতি-সম্পাদকের সাথে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করে। এসময় উপস্থিত ছিলেন আ.লীগ নেতা আব্দুল করিম, যুবলীগ নেতা ইলিয়াস হোসেন, আব্দুল খালেক, রিংকু, রনি, ফরহাদ প্রমুখ।

গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুর গাংনী উপজেলার বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেছেন বিভিন্ন এলাকার জনপ্রতিনিধি, আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও পূজা উৎযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ। গতকাল রোববার দিনব্যাপী পৃথক সময়ে তারা পরিদর্শন করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। সন্ধ্যায় গাংনী কেন্দ্রীয় পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ইব্রাহিম শাহীন, জেলা পূজা উৎযাপন কমিটির সভাপতি পল্লব ভট্টাচার্য ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শরফরাজ হোসেন মৃদুলসহ নেতৃবৃন্দ।

অপরদিকে, রাইপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন রাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান মোকলেছ। উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আ.লীগ সভাপতি সামসুজ্জামান মঙ্গল, রাইপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হাসান রেজা সেন্টু।  রাত আটটার দিকে গাংনী পৌর এলাকার তিনটি পূজাম-প পরিদর্শন করেন পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম। এসময় তিনটি ম-প কমিটির নেতৃবৃন্দের হাতে ২০ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করেন। মেয়রের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন পৌর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক প্লাবনসহ নেতৃবৃন্দ। একই সময়ে জেলা পরিষদ সদস্য মজিরুল ইসলাম ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র নবীর উদ্দীন পৌর এলাকার তিনটি পূজা ম-প পরিদর্শন করে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এদিকে তরুণ উদ্যোক্তা শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ষোলটাকা ইউনিয়নের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করেন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More