কুষ্টিয়ায় এনআইডি জালিয়াতি করে জমি দখলের ঘটনায় কমিটি গঠন : তিন আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে ৭৪টি অভিযোগ দায়ের

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ায় সম্প্রতি জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াত করে জায়গা জমি দখলের ঘটনার পর গঠিত কমিটির কাছে অন্তত ৯৩টি অভিযোগ জমা পড়েছে। এসব অভিযোগ যাচাই বাছাই করা হচ্ছে।

এদিকে জমি-জালিয়াতি ঘটনার বিষয়টির ব্যাপারে কড়া হুশিয়ারি দিয়ে কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনের সাংসদ ও আওয়ামী লীগের য্গ্মু সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ জেলা প্রশাসককে একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন। ১৬ সেপ্টেম্বর তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির কাছে জেলার যেকোন বাসিন্দা যাদের জমি অন্যায়ভাবে দখল করা হয়েছে বা দলিল করে নিয়েছে সে ব্যাপারে তথ্য দিয়ে সহায়তা করে। এতে জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেনকে এ কমিটির প্রধান করা হয়েছে। অপর দুই সদস্য পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত ও সরকারি কৌশুলি অনুপ কুমার নন্দী।

সম্প্রতি কুষ্টিয়া শহরের বাসিন্দা এমএমএ ওয়াদুদ পরিবারের জমি কেনা-বেচা ও দখল চেষ্টার অভিযোগ এনে মামলা করেন। মামলাটি বর্তমানে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) তদন্ত করছে। এক আসামি আদালতে তার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে। এ জবানবন্দীতে রাজনৈতিক প্রভাবশালী নেতাসহ বিভিন্নজনের সম্পৃক্ততার তথ্য উঠে আসে।

জেলা প্রশাসক কর্তৃক গঠিত কমিটি সূত্র জানায়, তিন সদস্য বিশিষ্ট ওই কমিটির কাছে এ পর্যন্ত অন্তত ৯৩টি লিখিত অভিযোগ জমা পড়ে। লিখিত অভিযোগের সাথে জমির বিভিন্ন কাগজপত্রও সংযুক্ত করে দেয়া হয়। এর মধ্যে জেলা প্রশাসকের কাছে জমা পড়ে ১৯টি। পুলিশ সুপারের কাছে জমা পড়ে ৭৪টি।

কমিটি সূত্র জানায়, কমিটির কাছে জমা পড়া অভিযোগগুলোর মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের এক প্রভাবশালী নেতার বিরুদ্ধেই ৪৪টি অভিযোগ জমা পড়েছে। এছাড়া শহর আওয়ামী লীগের একটি নেতার বিরুদ্ধে অন্তত ২৫টি অভিযোগ এসেছে। এছাড়া এক নেতার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ৫টি অভিযোগ জমা পড়েছে।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, কমিটির কাছে যে অভিযোগ গুলো দেয়া হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More