ধর্মের নাম শান্তি সেখানে অশান্তির জায়গা নাই

আলমডাঙ্গার প্রাগপুরে সম্প্রীতি সমাবেশে জেলা প্রশাসক

হাটবোয়ালিয়া প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার প্রাগপুরে সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশে সম্প্রতি সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন ও জেলার পুলিশের আয়োজনে এ সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৩ অক্টোবর শনিবার বেলা ১১টায় হারদী ইউনিয়নের প্রাগপুর বাজারে অনুষ্ঠিত এ সম্প্রীতি সমাবেশে আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার। বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর আলম রনি, সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) মুন্না বিশ্বাস, এনএসআই উপ-পরিচালক জামিল চৌধুরী, হারদী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আলমগীর হোসেনের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন আলমডাঙ্গা থানার এসআই সনজিৎ কুমার, ওসমানপুর ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই হাসনাঈন, ৫নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তানসেন আলী, সিদ্দিকুর রহমান মেম্বার, হরজ মেম্বার, মমতাজ মেম্বার, হীরক নাম্বার, আমিরুল ইসলাম, আনারুল হক প্রমুখ।
সমাবেশে প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার বলেন, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। এখানে প্রত্যেক নাগরিকের সমান অধিকার রয়েছে। এই সম-অধিকারের বাংলাদেশকে কেউ যদি বিভাজন করার অপচেষ্টা করে, তারা জাতির শত্রু, রাষ্ট্রের শত্রু, মানবতার শত্রু। এই সাম্প্রদায়িক শত্রুদের সব সময় পরাজিত করবে শুভ বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ। আমি জানি আপনাদের এলাকার মানুষ শান্তিপ্রিয়। আরো ভালো লাগছে এজন্য যে, কথিত ফেসবুকে পোস্টধারী সেই নরেশের ছোট্ট দোকান এখন পর্যন্ত অক্ষত আছে। আপনারা যদি এখানে মানুষ ভালো না হতেন, আপনারা যদি ধৈর্য্যরে পরীক্ষা না দিতেন, তাহলে কিন্তু এখানে দোকানটি থাকতো না। তাই আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। ইসলাম মানে শান্তি, মুসলমানরা কখনোই অশান্তি চাইনা। যে ধর্মের নাম শান্তি সেখানে অশান্তির জায়গা নেই।
সমাবেশে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম বলেন, জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের চক্রান্ত হতে পারে উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন, দুই বছর পর নির্বাচন। এই নির্বাচন সামনে রেখে দেশকে অস্থিতিশীল করতে সাম্প্রদায়িক হামলার মতো অপতৎপরতা চালানো হতে পারে। তবে সরকার এসব তৎপরতা মোকাবিলায় কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এই অপকর্মের হোতাদের সম্পর্কে পুলিশ সচেতন রয়েছে।
উল্লেখ্য, মিরপুর উপজেলার মালিহাদ গ্রামের সন্ন্যাসী কুমার দাসের ছেলে নরেশ কুমার দাস (২৮) আলমডাঙ্গা প্রাগপুর বাজারে সেলুনের একটি কাঠের দোকান দিয়ে ব্যবসা করেন। গত ২০ অক্টোবর রাতে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) আইডিতে ধর্মীয় উস্কানীমূলক ছবি দিয়ে পোস্ট দেয়। বিষয়টি জানাজানি হলে ২১ অক্টোবর সকালে মিরপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এরপর এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ এবং ওসমানপুর ক্যাম্প পুলিশ স্থানীয় শুভবুদ্ধিসম্পন্ন ব্যক্তিদের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই ছবি প্রকাশের ঘটনায় সাম্প্রদায়িক সহিংসতা রোধকল্পে প্রাগপুর বাজারে সম্প্রীতি সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More