ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল : আরও ২১ জনের প্রাণহানি

দেশে করোনায় শানাক্ত ২৫ হাজার ছাড়ালো : নতুন আক্রান্ত এক হাজার ২৫১ জন

স্টাফ রিপোর্টার: দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে। সেই সঙ্গে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে আরও ২১ জনের। এর আগের দিনও প্রাণ হারান ২১ জন। এ নিয়ে দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়ার পর ৭২ দিনে প্রাণ গেলো ৩৭০ জনের। আর ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে এক হাজার ২৫১ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় দেশে করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ হাজার ১২১ জন। গতকাল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানানো হয়। এর আগের দিন ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা শনাক্ত হয়েছিলো এক হাজার ৬০২ জনের।

ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২১ জনের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগের ১৪ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের চারজন, ময়মনসিংহ বিভাগের একজন, খুলনা বিভাগের একজন ও বরিশাল বিভাগের একজন। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীর বাসিন্দা সাতজন। মারা যাওয়া ব্যক্তিদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে দুজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী পাঁচজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে চারজন ও ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে দুজন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪০৮ জন। এ নিয়ে সর্বমোট চার হাজার ৯৯৩ জন সুস্থ হয়েছেন। ব্রিফিংয়ের তথ্যমতে, গত এক দিনে দেশের ৪২টি ল্যাবে আট হাজার ৪৪৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৮০ শতাংশ। এর আগের দিন করোনা পরীক্ষা হয় নয় হাজার ৭৮৮ জনের। শনান্তের হার ছিলো ১৬ দশমিক ৩৭ শতাংশ। এখন পর্যন্ত দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে এক লাখ ৯৩ হাজার ৬৪৫টি। গড় শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৯৭ শতাংশ। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে। আর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। গতকাল বুলেটিনে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে আরও ৩২৬ জনকে। আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৯৩ জন। বর্তমানে সারাদেশে আইসোলেশনে রয়েছেন তিন হাজার ৬১৬ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে তিন হাজার ৫৩১ জনকে। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫১ হাজার ২১৭ জন। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন এক লাখ ৯৬ হাজার ২৭৪ জন। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নোয়াখালীতে নতুন করে ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ১৮৬ জন। গোপালগঞ্জে নতুন করে ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ১০৫ জন।

ফেনীতে এক চিকিৎসকসহ নতুন করে চারজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৬৫ জন। সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় তিন পুলিশসহ নতুন করে চারজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে উপজেলায় মোট শনাক্ত ১৮ জন। চাঁপাইনবাবগঞ্জে নতুন করে এক শিশু ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ ২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৩৭ জন। দিনাজপুরে নতুন করে ১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৯৩ জন। বাগেরহাটে ঢাকা ও চট্টগ্রামফেরত দুজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ১৪ জন। ফরিদপুরে দুই বোন ও ভাগ্নিসহ আরও আটজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে ফরিদপুরে মোট শনাক্ত ৬১ জন। মানিকগঞ্জে নতুন করে তিন স্বাস্থ্যকর্মীসহ সাতজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৫৬ জন। কুমিল্লায় মঙ্গলবার দুপুরে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ নতুন করে সাতজন আক্রান্তের খবর জানালেও বিকালে এসে সেই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৫ জনে। আক্রান্তদের ৩১ জনই মুরাদনগরের বাসিন্দা। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্তের সংখ্যা ৩৫২ জন। মাদারীপুরে নতুন করে আরও পাঁচজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৬৩ জন। এ ছাড়া চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত রোগী পাওয়া গেছে ৮৪৫ জন। নাটোরে একদিনে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩০ জনের। এর মধ্যে ১৯ জনই পুলিশ। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত ৪৩ জন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More