চুয়াডাঙ্গায় ঘূর্ণিঘড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য চাল  ও কাঁচা ঘরবাড়ি মেরামতের জন্য টিন বরাদ্দ দিয়েছে প্রশাসন

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় ঘূর্ণিঘড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য চাল ও কাঁচা ঘরবাড়ি মেরামতের জন্য টিন বরাদ্দ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এসব বরাদ্দ উপজেলা প্রশাসনের কাছে জরুরি ভিত্তিতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে, গতকাল শুক্রবার নতুন করে ২৫০ বান্ডিল টিন এবং টিনশ্রমিকদের মজুরী বাবদ ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে ত্রাণ ও দূর্যোগ অধিদফতর।
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ত্রাণ ও পূণর্বাসন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে চুয়াডাঙ্গা জেলার মানুষ ও ঘরবাড়ি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জেলা প্রশাসন তাৎক্ষণিকভাবে আপদকালীন ৭১ দশমিক ৮ বান্ডিল টিন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় ৩১ বান্ডিল টেউটিন ও আলমডাঙ্গা উপজেলায় ৪০ দশমিক ৮ বান্ডিল টেউটিন জরুরি ভিত্তিতে বরাদ্দ দেয়। তবে শ্রমিকদের মজুরী বাবদ এখানে কোনো টাকা বরাদ্দ নেই। জেলার চার উপজেলায় আম্পানের কারণে ৫০ মে. টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ও আলমডাঙ্গা উপজেলায় ১৫ মে. টন করে চাল এবং দামুড়হুদা উপজেলা ও জীবননগর উপজেলায় ১০ মে. টন করে চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।
এদিকে, গতকাল শুক্রবার নতুন করে ত্রাণ ও দূর্যোগ অধিদফতর থেকে ২৫০ বান্ডিল টেউটিনের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। একই সাথে প্রতি বান্ডিল টিনের শ্রমিক মজুরি হিসেবে ৩ হাজার টাকা করে ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে । এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৫৫ বান্ডিল টেউটিন এবং ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা, আলমডাঙ্গা উপজেলায় ৬৫ বান্ডিল টেউটিন এবং ১ লাখ ৯৫ হাজার টাকা, দামুড়হুদা উপজেলায় ৩৫ বান্ডিল টেউটিন এবং ১ লাখ ৫ হাজার টাকা এবং জীবননগর উপজেলায় সবচেয়ে বেশি ৯৫ বান্ডিল টেউটিন এবং ২ লাখ ৮৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এই টাকা চেকের মাধ্যমে প্রদান করা হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More