দামুড়হুদায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদুল ফিতরের নামাজ মসজিদে আদায়ের লক্ষে ধর্মীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময়

দামুড়হুদা ব্যুরো : দামুড়হুদায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ মসজিদে আদায়ের লক্ষে ঈদগাহ কমিটির নেতৃবৃন্দ ও ধর্মীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ওই মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময়সভায় উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি (অপারেশনস) মো: সামসুদ্দোহা, উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো: জিন্নাত আলী, দামুড়হুদা বেগোপাড়া ঈদগাহ কমিটির সভাপতি আশরাফুল আলম, দশমী ঈদগাহ কমিটির সাধারণ সম্পাদক বশীর আহমেদ, সাংবাদিক বখতিয়ার হোসেন বকুল, দামুড়হুদা ডিএস দাখিল মাদরাসা ঈদগা কমিটির সভাপতি জয়নাল আবেদীন, কার্পাসডাঙ্গা ঈদগা কমিটির সভাপতি আব্দুল কাদের বিশ্বাস, কুনিয়া ঈদগা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হযরত আলী, পুরাতন হাউলী ঈদগা কমিটির সভাপতি আব্দুল মজিদ, নতুন বাস্তুপুর পশ্চিমপাড়া ঈদগা কমিটির সভাপতি সেলিম উদ্দীন, পূর্বপাড়া ঈদগা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর, পুরাতন বাস্তুপুর ঈদগা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল হক, পারকৃষ্ণপুর ঈদগা কমিটির সভাপতি মনজুর মোর্শেদ, দক্ষিন চাঁদপুর ঈদগা কমিটির সভাপতি আজিজুল হক, কুনিয়া চাঁদপুর ঈদগা কমিটির সভাপতি আব্দুর রহমান, ডুগডুগি বাজার ঈদগা কমিটির সভাপতি শহিদুল ইসলাম প্রমূখ। সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, করোনা ভাইরাসের প্রাদূভাবজনিত কারণে জনস্বাস্থ্যের বিষয়টি বিবেচনা করে এ বছর উম্মুক্ত খোলা জায়গায় না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিকটস্থ মসজিদে মসজিদে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করার অনুরোধ করা হচ্ছে। নামাজের সময় মসজিদের কার্পেট বিছানো যাবেনা। নামাজের পূর্বে মসজিদ জীবানুমুক্ত করতে হবে। নিজ নিজ দায়িত্বে বাড়ি থেকে জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে। মসজিদের প্রবেশদ্বারে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। বাড়ি থেকে ওযু করে মাস্ক মুখে মসজিদে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ কিম্বা টুপি ব্যবহার করা যাবেনা। স্বাস্থ্যবিধি অনুসারে কাতারে দাঁড়ানোর সময় শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখতে হবে। এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে। শিশু, বয়োবৃদ্ধ, যে কোন অস্বুস্থ্য ব্যক্তি এবং অস্বুস্থ্যদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তিগন ঈদের নামাজের জামায়াতে অংশগ্রহন করতে পারবেনা। নামাজ শেষে কোলাকলি এবং পরষ্পর হাত মেলানা যাবেনা। খতিব, ইমাম এবং মসজিদ পরিচালনা কমিটি বিষয়গুলো বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবে। উল্লেখিত নির্দেশনা লংঘিত হলে স্থানীয় প্রশাসন ও আইন শৃংখলা নিয়ন্ত্রকারী বাহিনী সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

 

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More