দর্শনা পৌর সভায় মটর শ্রমিকদের ত্রান বিতরণে স্বজন প্রীতি ও অনিয়মের অভিযোগে ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা

চুয়াডাঙ্গার দর্শনা পৌর সভায় মটর শ্রমিকদের ত্রান বিতরণে স্বজন প্রীতি ও অনিয়মের অভিযোগে বিক্ষোভপ্রদর্শন করেছে সাধরন শ্রমিকরা। রোববার দুপুর ২ টার দিকে দর্শনা পৌরসভা চত্বরে এঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান,সেনাবাহিনীর একটি টিম ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
যানা গেছে, মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর ত্রান তহবির থেকে চুয়াডাঙ্গ জেলা প্রশাসক মো: নজরুল ইসলাম সরকার দর্শনা পৌর সভায় কর্মহিন মটর শ্রমিকদের জন্য খাদ্য সামগ্রী বরাদ্দ দেন পৌর সভায়। রোববার দুপুরে দর্শনা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মো: নাজিম উদ্দিনের তালিকা ভুক্তদের ৩০০ জন শ্রমিকদের মধ্যে পৌর সাভায় ত্রান বিতরনের সময় স্বজন প্রীতি ও অনিয়মের অভিযোগে এনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে সাধারন শ্রমিকরা। খবর পেয়ে দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান ঘটনাস্থলে এসে ত্রান বিতরনী বন্ধ করে দেন। বাকি ৬৪ জনের ত্রান সামগ্রী পৌর হেফাজতে রাখে। এ সময় ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনীর একটি টিম ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেছে।
দর্শনা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মো: নাজিম উদ্দিন বলেন, দর্শনায় মটর শ্রমিকের ৩ টি সংগঠন আছে। এই সংগঠনের লাল কার্ডে ১১১৬ জন সদস্য,কালো কার্ডে ২২৮ জন সদস্য ও সাদা কার্ডে ১১ জন সদস্যের ৩ টি সংগঠন। আমি ১১১৬ জনের লাল কার্ডে নির্বাচিত দর্শনা মটর শ্রমিকের সাদারন সম্পাদক । এর মধ্যে দুস্থ ২৮০ জনের নামের তালিকা পৌর সভায় দিয়েছ্ িযাদের ত্রান দেওয়া হচ্ছিল। প্রতিপক্ষ সড়যন্ত্র করে এঘটনা ঘটিয়ে।
সাবেক দর্শনা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মো: মজিবুল আলম বকুল অভিযোগ করে বলেন, যারা এই লক ডাউনে প্রকৃতি ভাবে মটর শ্রমিক কর্মহিন অবস্থায় আছে তাদের কে ত্রান না দিয়ে মো: নাজিম উদ্দিন তার স্বজনদের নাম দিয়ে তালিকা করেছে। তালিকায় শুধু ভোটার আইডি কার্ড দিয়েছে। মটর ডাইভার ও হেলপারদের সরকারী কাগজ পত্র দেয়নি। এ জন্য প্রকৃত দুস্থ শ্রমিকদের নাম বাদ দিয়ে তার স্বজন ও ভুয়া ডাইভার হেলপারের নামে ত্রান নিলে প্রকৃত সাধারন শ্রমিকরা বাধা দিয়েছি।
এবিষয়ে দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান বলেন, জেলা প্রশাসকের দেওয়া ত্রান সামগ্রী ৩০০ জনের মধ্যে দেওয়ার জন্য দর্শনা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মো: নাজিম উদ্দিন তালিকা নেওয়া হয়। রোববার দুপুরে ওই তালিকা ভুক্তদের মধ্যে ত্রান বিতরন করার সময় সাধারন শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে। এই তালিকায় সে স্বজন প্রীতি করেছে বলে অভিযোগের ভিত্তিতে ত্রান বিতরনী বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাকি ত্রান সামগ্রী প্রকৃতিক দুস্থ শ্রমিকদের মধ্যে দিয়ে দেওয়া হবে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More