যশোর থেকে ঝিনাইদহের একজনসহ ১০ করোনা রোগীর পলায়ন, ‘ভারতীয় ধরন’ ছড়ানোর শঙ্কা

যশোর প্রতিনিধি: যশোর আড়াইশ শয্যা হাসপাতাল থেকে ১০ জন করোনা রোগী পালিয়ে গেছেন। শনিবার সকাল থেকে রবিবার দুপুরের মধ্যে সুযোগ বুঝে এরা পালিয়েছেন। এতে সম্প্রতি বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী করোনাভাইরাসের ‘ভারতীয় ধরন’ বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। পলাতকদের কয়েকজন সম্প্রতি ভারত থেকে দেশে ফিরে করোনা আক্রান্ত হন। এদের মধ্যে একজনের বাড়ি ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে।
যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ২৩ এপ্রিল সকাল দশটা ৫৭ মিনিটে ভারতফেরত কিছু রোগীকে ভর্তি করা হয়। এরপর রবিবারও রোগী আসে। সবমিলিয়ে দুইদিনে ১০ জন করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের সবাইকে হাসপাতালের তৃতীয় তলায় করোনা ওয়ার্ডে নেয়া হয়। হাসপাতালের ভর্তি রেজিস্টার মতে, ভর্তি রোগীরা হলেন, যশোর শহরের বিমান অফিস মোড়ের আবুল কাসেমের স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৫৭), খালধার রোডের বিশ্বনাথের স্ত্রী মালা দত্ত, সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগম, একই গ্রামের একরামের স্ত্রী রোমা, প্রতাপকাটি গ্রামের জালাল উদ্দিনের ছেলে মমিন, রামকান্তপুর গ্রামের গোলাম রব্বানীর স্ত্রী নাসিমা বেগম, বাঘারপাড়া উপজেলার রায়পুর গ্রামের রায়পুর গ্রামের ফজর আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম, ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জের জনৈক মনোতোষের স্ত্রী শেফালি রানি, খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার রামরাইল গ্রামের আহম্মদ সানার ছেলে আমিরুল সানা ও একই জেলার রূপসা এলাকার শের আলীর ছেলে সোহেল। পরদিন সকালের পর থেকে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।
হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার দিলীপকুমার রায় বলেন, যারা পালিয়ে গেছে তাদের বিষয়ে খোঁজ নেয়া হচ্ছে। আশপাশের জেলার সিভিল সার্জনদের কাছে এ বিষয়ে তথ্য নিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More