আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার ব-বিলে গরু-মহিষ চুরির হিড়িক

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: সন্তানের মতো লালন পালন করা গরু মহিষ চুরি করে নিয়ে আলমডাঙ্গা ব-বিলসহ আশপাশ গ্রামের বেশকিছু কৃষকের সর্বশান্ত করে দিয়েছে চোরচক্র। আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার বন্ডবিল গ্রামে ও কুমারী ইউনিয়নের পারদুর্গাপুর, নওদাদুর্গাপুরে বেশ কিছুদিন ধরে ঘটছে গরু মহিষ চুরির হিড়িক। গত ৭-৮ দিনে ব্যবধানে বন্ডবিল গ্রাম থেকে চুরি হয়েছে ৩টি গরু ও ২টি মহিষ।
জানাগেছে, আলমডাঙ্গা বন্ডবিল গ্রামের রওশন আলীর ছেলে চাঁদ আলী পেশায় একজন কৃষক। মাথার ঘাম পায়ে ফেলে দিনরাত পরিশ্রম করে বাড়িতে ৩টি গরু লালন-পালন করছিলেন। গত মঙ্গলবার রাতে কৃষক চাঁদ আলী গরু তিনটি চুরি করে নিয়ে যায় চোরচক্র। গভীর রাতে গোয়াল ঘরের তালা ভেঙে গরু ৩টি চুরি করে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে গরু মালিক চাঁদ আলী বলেন, আমি কৃষি কাজ করে সংসার চালায়। না খেয়ে অনেক কষ্ট করে বেশ কিছুদিন আগে তিনটি গরু কিনে নিজের ছেলে মেয়ের মত করে লালন পালন করে আসছি। প্রতিদিনের ন্যায় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে গোয়ালঘরে গরু ৩টি বেঁধে গোয়াল ঘরে বেঁধে গেটে তালাবদ্ধ করি। রাত ১২ টার দিকে ঘুম থেকে উঠে আমার ছেলে গরুগুলোর খাবার দিয়ে ঘুমাতে চলে যায়। রাত দুইটার দিকে আমার মেয়ের কান্না শুনে ঘুম থেকে উঠি জানতে পারি গোয়াল ঘরে গরু নেই। এসময় আমার কান্না ও চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে। যখন গোয়ালে ৩টি গরু নেই তখন বুঝতে পারলাম চুরি হয়ে গেছে। পরদিন সকালে আমার ছেলে মিরানুল ইসলাম আলমডাঙ্গা থানায় গরু চুরি হয়েছে মর্মে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।
চাঁদ আলীর গরু চুরির কয়েকদিন আগে একই ভাবে গেট বন্ডবিল পাড়ার ঠান্ডুর ছেলে লিটনের একজোড়া মহিষ চুরি করে নিয়ে যায়। লিটন আলী বলেন, গভীর রাতে প্রতিদিনের ন্যায় মহিষের ঘাস দেয়ার জন্য গোয়ালে গিয়ে দেখি আমার মহিষ ২টি নেই। আমার চিৎকারে প্রতিবেশিরা ছুটে আসে। তাদেরকে সাথে নিয়ে গ্রামের সব মাঠে অনেক খোঁজাখুজির পর বুঝতে পারি আমার মহিষ চুরি করে নিয়ে গেছে। মহিষ চুরি হওয়ায় কৃষক লিটন আলী সর্বশান্ত হয়ে গেছেন।
এছাড়াও একই গ্রাম থেকে ২০-২৫ দিন আগে গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের দুটি মহিষসহ প্রায় ২০টি গরু চুরি করে নিয়ে গেছে। বন্ডবিলের পার্শ¦বর্তী কুমারী ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রাম থেকে বেশকিছুদিন ধরে একের পর এক গরু, মহিষ চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। অনেকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন আবার অনেকে করেননি।
আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবির জানান, বন্ডবিলসহ আশপাশ এলাকায় গরু চুরির ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের নাম উৎঘাটন ও গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে ওই এলাকায় সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলেছি।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More