উস্কানিমূলক বক্তব্য দেয়ায় মেহেরপুরে আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও দপ্তর সম্পাদকে কারণ দর্শানো নোটিশ

মেহেরপুর অফিস: নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন ও উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদানে মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক ও দপ্তর সম্পাদক মোখলেসুর রহমান খোকনকে পৃথকভাবে সতর্কসহ কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে মেহেরপুর ইউপি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তারা। একই সঙ্গে কেন তাদের বিরুদ্ধে নির্বাচন আচরণবিধি ভঙ্গের ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা কারণ দর্শাতে দুই দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার গাংনী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও ষোলটাকা ইউনিয়ন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন ও মেহেরপুর সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও কুতুবপুর ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা কবির আহমেদ পৃথকভাবে তাদের এ নোটিশ দেন।
সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কবির আহমেদ বলেন, নির্বাচনী এলাকায় প্রচারণায় গিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোখলেসুর রহমান খোকন নির্বাচন আচরণ বিধি ভঙ্গ করে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন। বিষয়টি নজরে এলে তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয় এবং ভবিষ্যতে যেন এমন কর্মকা- থেকে বিরত থাকে সে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু আনছার বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক ও জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোখলেসুর রহমান নির্বাচনী প্রচারণায় উস্তানি মূলক বক্তব্য দিয়েছেন। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে স্ব স্ব রিটার্নিং কর্মকর্তা তাদের সতর্কসহ কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, গত ১৯ নভেম্বর শুক্রবার রাতে গাংনী উপজেলা ষোলটাকা ইউনিয়নের বানিয়াপুকুর গ্রামে আওয়ামী লীগ প্রার্থী দেলবার হোসেনের প্রচারণায় গিয়ে এক নির্বাচনী সভায় নির্বাচন আচরণ বিধি ভঙ্গ করে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক। তিনি বলেন, একবার দুইবার না হলে তিনবার ভোট দিবেন, ভোট দিয়ে দেবেন, কেউ ঠেলা দিলে আপনিও ঠেলা দিবেন। এছাড়াও বিভিন্ন উস্কানি মুলক বক্তব্য দেন।
অপরদিকে সোমবার রাতে সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের কুলবাড়িয়া গ্রামে জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মোখলেসুর রহমান খোকন উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে নির্বাচন আচরণ বিধি ভঙ্গ করেন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More