কুষ্টিয়ায় ইউপি সদস্য গুলিবিদ্ধ : সাবেক চেয়ারম্যান আটক

 

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার খোকসায় আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশ থেকে ফেরার পথে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ইউপি সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এ ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার রাত ১১টার দিকে ওসমানপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার হায়দার আলী (৫০) তার নিজ গ্রাম দেবিনগরে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীদের হামলায় গুলিবিদ্ধ হন। গভীর রাতে পুলিশ পাহারায় তাকে (হায়দার) প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। গুলিবিদ্ধ হায়দার আলী সাবেক আনসার বাহিনীর সদস্য ছিলেন। এ সময় হামলাকারীরা আহত মেম্বারের সমর্থক রশিদ ও রেজাউলের বাড়ি ভাঙচুর ও লুটতরাজের ঘটনা ঘটায়। ইউপি সদস্যের ওপর হামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। রাতেই গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। গুলিবিদ্ধ ইউপি সদস্যের ছেলে ইদ্রিস আলী বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে খোকসা থানায় একটি হত্যা প্রচেষ্টার মামলা করেন। এ মামলার প্রধান আসামি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আহত ইউপি সদস্য হায়দার আলী জানান, আওয়ামী লীগের একাংশ আয়োজিত সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে অংশ না নেয়ার বিষয়ে প্রতিপক্ষের নেতাদের মদদপুষ্টরা কয়েকদিন আগে থেকে ইউনিয়নজুড়ে প্রচার করে আসছিলো। তাদের নির্দেশ উপেক্ষা করে লোকজন নিয়ে বুধবার বিকেলে উপজেলা সদরের হাইস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত জনসভায় তিনি যোগ দেন। রাত ১০টার দিকে হেঁটে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। নিজের গ্রাম দেবিনগরে পৌঁছুলে প্রতিপক্ষরা তাকে লক্ষ্য করে ৮-৯ রাউন্ড গুলি চালায়। তিনি গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইদুজ্জামান জানান, হায়দারের পায়ে বন্দুকের গুলির অসংখ্য স্প্রিন্টার ঢুকে আছে, যা অপারেশন ছাড়া বের করা অসম্ভব। তাই তাকে কুষ্টিয়ায় রেফার্ড করা হয়েছে। খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, ইউপি সদস্য হায়দার আলীর ছেলে বাদী হয়ে মামলা করেছেন। সেই মামলার প্রধান আসামি সাবেক চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানকে আটক করা হয়েছে। প্রতিপক্ষ অভিযোগ দিলে মামলা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান। তবে পরিস্থিতি শান্ত আছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More