চুয়াডাঙ্গায় করোনা ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাকালে রাজস্ব খাতে স্থায়ী নিয়োগে বাদ পড়া স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের সরাসরি স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন চুয়াডাঙ্গার করোনা ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা। গতকাল সোমবার সকালে চুয়াডাঙ্গা জেলা ও উপজেলা করোনা নমুনা সংগ্রহকারী স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টগণ চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানান। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাজেদুর রহমান ওয়াসিম আলী, আনিছুর রহমান, লিমন হোসেন, হাসানুজ্জামান, জাহানারা খাতুন, আতাহার আলী শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টম অধিবেশনে কোভিড-১৯ এর সাথে সরাসরি যুক্ত স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের রাজস্ব খাতে নিয়োগের ঘোষণা দেন। কিন্তু সরকার পরপর প্রথম ধাপে ১৪৫ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ৫৭ জন স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের সরাসরি স্থায়ী নিয়োগ দেন। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় ১৪৫ জন এবং ৫৭ জনের মধ্যে প্রকৃত করোনযোদ্ধা মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের বঞ্চিত করা হয়। তারা বলেন, বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ এর প্রথম থেকেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবীরা কাজ করে যাচ্ছেন। স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা তাদের জীবনের মায়া ত্যাগ করে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ সদস্য, মন্ত্রী, সচিব, ব্র্যাকের সংগ্রহকৃত নমুনা পরীক্ষা, বিভিন্ন জেলার সংগ্রহ করা নমুনা, বিদেশগামী যাত্রীদের নমুনা পরীক্ষা, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের সংগ্রহ করা নমুনা পরীক্ষাসহ করোনা পরীক্ষা করতে আসা সবার পরীক্ষা ও নমুনা সংগ্রহ করে আসছে। দেশ ও জনগণের স্বার্থে এ বৈশ্বিক মহামারিতে স্বেচ্ছাসেবকরা এগিয়ে এলেও প্রথম সারির কোভিড-১৯ হাসপাতালের নমুনা সংগ্রহকারী ও আরটি-পিসিআর ল্যাবে কর্মরত সকল স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এ অবস্থায় বাদ পড়া স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব) করোনা যোদ্ধাদের ১৪৫ জন ও ৫৭ জনের মতো নিযোগ প্রদানে মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রযোজনীয় হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More