চুয়াডাঙ্গায় যুবলীগের উদ্যোগে শেখ ফজলে শামস পরশের জন্মদিন পালিত

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় জেলা যুবলীগের উদ্যোগে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের জন্মদিন পালন করা হয়েছে। জন্মদিন পালন উপলক্ষে আলোচনাসভা দোয়া অনুষ্ঠান ও কেক কাটা হয়। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় (বাদ মাগরিব) জেলা যুবলীগের কার্যালয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। পাশাপাশি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ও ১৯৭১ সালের নিহত সকল শহীদ এবং শেখ ফজলে শামস পরশের পিতা শেখ ফজলুল হক মণি ও মা আরজু মণির রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন নেতৃবৃন্দ।

চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের সদস্য সাজেদুল ইসলাম লাভলুর সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ একজন মানবিক গুণাবলীর অধিকারী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শ্রেষ্ঠ আবিষ্কার তিনি। পিতার যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে তিনি সংগঠনের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। নিজস্ব গুণাবলির মধ্যদিয়ে তিনি আজ সংগঠনকে আলোকিত করে তুলেছেন।

তিনি আরও বলেন, শেখ পরশ যুবলীগের দায়িত্ব নেয়ার পর দেশের যেকোনো সঙ্কটে বিশেষ করে করোনাকালীন সর্বশেষ বন্যায় বিপর্যস্ত অসহায় মানুষের পাশে তার নেতৃত্বে যুবলীগ মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি যুবলীগকে মানবিক যুবলীগে রূপান্তরিত করেছেন। আদর্শ ও স্বচ্ছতায় বাংলাদেশের রাজনীতিতে তিনি এক অনন্য উদাহরণ। ২০১৯ সালের ২৩ নভেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউটে যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেসে চেয়ারম্যান হিসেবে শেখ ফজলে শামস পরশের নাম ঘোষণা করা হয়। আজ তার জন্মদিন। জন্মের শুভক্ষণ সমুজ্জ্বল প্রীতময় হোক।

আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য জোবায়ের আহমেদ সাব্বির। জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলী, আবু বক্কর সিদ্দিক আরিফ, আলমগীর আজম খোকা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা পিরু মিয়া, শেখ শাহী, মাসুদুর রহমান মাসুম, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল ইমরান শুভ, হাসানুল ইসলাম পলেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রামিম হাসান সৈকত, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সামিউল শেখ সুইট, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি খালিদ ম-ল, তানভির রেজা টুটুল, চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক খানজাহান আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ রুবেল, প্রচার সম্পাদক তানভির হাসান সঞ্জু, ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আব্দুল আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠু শেখ, সাংগঠনিক সম্পাদক রনি পারভেজ, ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম, বাড়াদি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শরিফ উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান হুমায়ন, খাদিমপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি কামাল হোসেন, সাগর, গাংনী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা বজলুর রহমান, ইয়ামিন আলম, মনিরুল ইসলাম,

আরও উপস্থিত ছিলেন দিপু বিশ্বাস, লোকমান, জাকির, জামাল খান, মিন্টু, নোমান, ইমরান, মিলন, রজব, সোহাগ, আলতাফ হোসেন, সুজন, শাকিব, আমান আলি, সজীব, ইকবাল, কাজল, জিসান, হাসিফ, পারভেজ, বাচ্চু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আনোয়ার শেখ, ওয়াসিম, শেখ রাসেল স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাওন রেজা কবির, সৌরভ, সাগর, রাসেল, রিয়াদ প্রমুখ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More