জীবননগরে ১১৪ জন কৃষক পেলো সরকারি প্রণোদনার সার ও বীজ প্রণোদনার সার-বীজ বাজারে বিক্রির প্রমাণ পেলে কঠোর পদক্ষেপ

জীবননগর ব্যুরো: চলতি খরিদ-২ মরসুমে মাসকালাই উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে ২০২২-২০২৩ সালে প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় বিনামূল্যে বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরণ করা হয়েছে। জীবননগর কৃষি বিভাগের উদ্যোগে গতকাল বৃহস্পতিবার জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিভাস চন্দ্র সাহা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ১১৪ জন কৃষকের হাতে মাসকালাই বীজ এমওপি ও ডিএপি সার তুলে দেন।
সার বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তাগণ প্রণোদনাপ্রাপ্ত কৃষকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, সরকার একটি বিশেষ লক্ষ্য নিয়ে দেশে মাসকালাই চাষ বৃদ্ধির লক্ষ্যে আপনাদের বাছাই করে বিনামূল্যে বীজ ও রাসায়নিক সার প্রদান করছে। সরকার যে উদ্দেশ্য নিয়ে এগিয়ে এসেছে সে লক্ষ্য বাস্তবায়িত হয় সেদিকে আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে। প্রণোদনাপ্রাপ্ত রাসায়নিক সার যদি বাজারে বিক্রির ও বীজ খেয়ে ফেলার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল ইসলাম রাসেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সার-বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা, কৃষি বিভাগের চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, জীবননগর উপজেলার অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল খালেক ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) স্বপন কুমার দাস। অনুষ্ঠান শেষে ১১৪ জন কৃষকের হাতে ৫ কেজি করে মাসকালাইয়ের বীজ, ৫ কেজি এমওপি ও ১০ কেজি করে ডিএপি সার তুলে দেয়া হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More