জীবননগর হাসাদাহে ঘরের সিড়িতে অস্বাভাবিক তাপ : কৌতুহলী মানুষের ভিড়

হাসাদাহ প্রতিনিধি: জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ বাজারের মোল্লাপাড়ায় একটি বসতবাড়ির সিড়ির নিচ থেকে উত্তাপ ছড়াচ্ছে। নুরু মোল্লার বাড়ি থেকে এ গরম তাপমাত্রা অনুভব করতে এলাকার নর-নারী ভিড় জমাচ্ছে।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, গর্ভধারিণী মাকে মারা ধরার জন্য গজব পড়েছে এ বাড়িতে। নুরুল মোল্লার ছেলে সাগর মোল্লা বলেন, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে সিড়ি দিয়ে উপরে উঠতে গিয়ে পায়ে গরমের তাপ পাই। বিষয়টি বাড়ির সকলকে জানাই এবং বাড়ীর আশপাশের প্রতিবেশীদের জানাই। হঠাৎ এমন হওয়ায় সবাই চিন্তিত, প্রথমে মনে হলো কারেন্ট লাইনে থেকে এমন হতে পারে। তাই কারেন্ট সুইচ অফ রাখা হয়। তারপরেও তাপমাত্রা কমেনি। এছাড়াও বিভিন্ন জনের কথামতো মাদ্রাসা থেকে ছাত্রদের ডেকে এনে কোরআন তেলাওয়াত করানো হয় এবং জীবননগর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হলে তারা এসে বিষয়টি দেখে বলেন আমরা সঠিক ভাবে বলতে পারছি না। এখানকার মাটি নিয়ে পরীক্ষা করালে সঠিক ভাবে বলা যাবে আসলে কি কারণে নিচ থেকে তাপমাত্রা উঠছে। নিচ থেকে তাপমাত্রা উঠায় একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছে নুরুল মোল্লার বড় ছেলে  সাগর মোল্লো (২৮) কিছুদিন আগে তার মা হেলেনা বেগমকে (৫২) বেধড়ক মারপিট ও রক্তাক্ত করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। তাই আল্লাহর উপর থেকে গজব পড়েছে। নুরুল মোল্লার দুই ছেলে একটি মাত্র মেয়ে সাগর দুই ভাইয়ের মধ্যে বড় সাগর মোল্লা ৩টি বিয়ে করেছেন। বছর তিনেক আগে একটি চাকরি কিছুদিন করার পর তা ছেড়ে বাড়িতে চলে আসে। বর্তমানে বেকার সাগর মোল্লার বাপ নুরুল মোল্লা চাকরির সুবাদে বাইরে থাকে। সাগর মোল্লা বিভিন্ন সময় মায়ের ওপরে ক্ষিপ্ত হয়ে মারপিট করে থাকতো। তার এই  কার্যকলাপে মহল্লাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More