ঝিনাইদহে ছড়িয়ে পড়েছে গরুর ক্ষুরারোগ : খামারিরা আতঙ্কে

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নসহ এর আশপাশ জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে গরুর ক্ষুরারোগ। এতে অনেক গরু মারা যাচ্ছে বলে গরু খামারিদের মধ্যে অতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ক্ষুরারোগে মুখে ঘা ও জ্বরের লক্ষণ নিয়ে হঠাৎ করে গত কয়েকদিনের মধ্যে সদর উপজেলার মহারাজ পুর ইউনিয়নের বিষয়খালী গ্রামের মোশারেফ হোসেন, পলাশ, পল্লব ঘোষ, খোন্দকার মো. রবিউল ইসলাম, কেশবপুর গ্রামের রুহুল আমিনের ৭ দিনের বাছুরসহ বেশ কয়েকজনের কয়েকটি গরু মারা যায়। এ কারণে গ্রামের গরু খামারি ও কৃষকদের মাঝে ব্যাপক আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। ইউনিয়নের একুশটি গ্রামসহ আশেপাশে ছোট বড় বেশকিছু গরুর খামার রয়েছে। হটাৎ এভাবে গরু মারা যাওয়ার কারণে প্রত্যেকটি গরুর খামারিরা ব্যাপক ঝুঁকির মধ্যে পড়ে গেছে। যে খামারে এ ক্ষুরারোগ দেখা দিচ্ছে সেই গরু সহজে আর চিকিৎসা করানো যাচ্ছে না। তার বেশির ভাগই মারা যাচ্ছে। এ কারণে এলাকাজুড়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে এলাকার সাধারণ কৃষক এবং খামারিদের মধ্যে পশু চিকিৎসক ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের প্রতি যথেষ্ট ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
তারা ক্ষোভের সুরে বলেন, অফিসে খবর দিলেও ঠিকমতো চিকিৎসকরা এলাকাতে জানি না বা খোঁজখবর নেন না। মাঝে মাঝে একজন ডাক্তার পাঠান। প্রয়োজনীয় পশু চিকিৎসক এবং টিকার পর্যাপ্ত অভাব রয়েছে বলে তারা জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা.সুব্রত কুমার ব্যানার্জী বলেন, বিষয়খালী এলাকায় গরুর ক্ষুরারোগ দেখা দিয়েছে বলে আমরা জেনেছি এবং সে ব্যাপারে যথেষ্ঠ তৎপরতা চালাচ্ছি। পর্যাপ্ত টিকার ব্যবস্থা করেছি এবং এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী কর্মকর্তাকে সর্তকতার সাথে বিষয়টি দেখার জন্য বলা হয়েছে। গরু একটি অর্থ উর্পাজনের মাধ্যম; সে কারনে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতর আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখবেন বলে এলাকাবাসী আশা করে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More