ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য নায়ক সজীব ওয়াজেদ জয়

চুয়াডাঙ্গায় সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উদযাপন অনুষ্ঠানে নঈম জোয়ার্দ্দার

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য নায়ক এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিখাতে ঘটে যাওয়া বিপ্লবের স্থপতি সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫২তম জন্মদিন উদযাপন করা হয়েছে। সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল বুধবার বিকেল চারটায় চুয়াডাঙ্গা ঘোড়ামারা ব্রিজ ও নবগঙ্গা খালের ধারে বৃক্ষরোপণ করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। পরবর্তীতে মাগরিবের নামাজ পর জেলা যুবলীগের কার্যালয়ে আলোচনাসভা, কেককাটা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের সদস্য সাজেদুল ইসলাম লাভলুর সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি থেকে বক্তব্য দেন জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘সজীব ওয়াজেদ জয় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দেশের প্রখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার পুত্র। তিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের এদিনে (২৭ জুলাই) জন্মগ্রহণ করেন। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তার নাম রাখেন নানা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশের নেপথ্য নায়ক, তথ্য প্রযুক্তিবিদ ও তরুণ রাজনীতিবিদ। তার ৫২তম জন্মদিন আজ।

তিনিই ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইশতেহারে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার বিষয়টি নিয়ে আসেন। পর্দার অর্ন্তরালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে গোটা দেশে তথ্য-প্রযুক্তির বিপ্লব ঘটান এই তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ। বর্তমানে দলীয় ঘরানা ছাড়াও তথ্য-প্রযুক্তি, রাজনীতি, সামাজিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে দেশে তথ্য-প্রযুক্তির বিকাশ, তরুণ উদ্যোক্তা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছেন।’

জেলা যুবলীগের সদস্য হাফিজুর রহমান হাপুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা যুবলীগের সদস্য আজাদ আলী, আবু বক্কর সিদ্দিক আরিফ ও আলমগীর আজম খোকা।

অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শেখ শাহী, মাসুদুর রহমান মাসুম, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল ইমরান শুভ, হাসানুল ইসলাম পলেন, জুয়েল জোয়ার্দ্দার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা রামিম হোসেন সৈকত, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সামিউল শেখ সুইট, বঙ্গবন্ধু ছাত্রপরিষদের সাবেক সভাপতি খালিদ ম-ল, ৩নং পৌর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক খানজাহান আলী, ৫নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আব্দুল আলিম, সাধারণ সম্পাদক মিঠু শেখ, ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আসাদ, পদ্মবিলা ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি বিপ্লব হোসেন, গাংনী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা বজলু ও মাখালডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জাকির। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন দিপু বিশ্বাস, মিন্টু, নোমান, নুরু, সুমন, সজল, সজিব, পারভেজ, জনি, জুয়েল, রনি পারভেজ, আহাদ, মাহফুজ, হাসিব, রাজন, সাগর, ফাহিম, রাসেল, আলো, বাধন, ইব্রাহিম, শিকদার, রজব, সাহেদ, শাকিল, বিপ্লব, জিসান, কাজল, ইকবাল, ফিরোজ, তারিখ, ইমন, ইয়াসিন, আবির, সালমান, রিদয়, সাব্বির, আরমান, সাকিব, বাচ্চু, সুজন, সরো, আলী, সনজু, সাহোগ, রুবেল, খোকন, তানজিল, সুশান্ত, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক আনোয়ার শেখ, চুয়াডাঙ্গা শেখ রাসেল স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাওন রেজা কবির, ইমরান, মিলন, সৌরভ প্রমুখ।

আলোচনা শেষে দোয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন চুয়াডাঙ্গা নতুন স্টেডিয়াম জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ ওমর ফারুক। দোয়া-মোনাজাতে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। একই সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট ও ১৯৭১ সালের নিহত সকল শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More