নগদ’র এজেন্ট কার্যালয়ে সিআইডি’র অভিযান এবং

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকার সিআইডি দলের চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুরে অভিযান চালানো নিয়ে নানা বিভ্রান্ত ছড়িয়েছে। বিভিন্ন মাধ্যমে চলছে রকমারি প্রচার। আরমান নামের একজনকে ঢাকায় নেয়াও হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টসূত্র বলেছে, অনলাইনে পাপজি কিম্বা কোন ক্রিকেটের বড় আসর শুরু হলেই এক শ্রেণির জুয়াড়িরা বাজি ধরে জুয়া খেলায় মেতে ওঠে। ঢাকায় এ ধরনেরই একটি চক্রের সন্ধান পেয়েছে সিআইডি। তথ্য উদঘাটনে মেহেরপুরের তুহিন নামের একজন টাকা লেনদেনকারীরও নাম উঠে এসেছে। তার নিকট থেকে উদ্ধার করা মোবাইলফোনের সিম ও নগদ হিসেব খোলা চুয়াডাঙ্গা উথলীর নাদিম নামের একজনের। কোথা থেকে নগদ একাউন্ট খোলা তথ্য নিতেই গতপরশু রাতে চুয়াডাঙ্গার দৌলাতদিয়াড়স্থ নগদের আঞ্চলিক এজেন্ট কার্যালয়ে সিআডির একটি টিম উপস্থিত হয়। তদন্তের স্বার্থে আরমানকে ঢাকায় নেয়া হয়। এ বিষয়ে ঢাকা সিআইডি দু একদিনের মধ্যে বিস্তারিত তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরতে পারে।
নগদ হিসেব খুলে কোন এজেন্ট কিসের টাকা কোথায় কীভাবে আদান প্রদান করতে পারবে তা শর্ত মানলেই তাকে সিমসহ হিসেব খোলা হয়। কেউ অবৈধভাবে লেনদেন করলে সেটা ওই এজেন্টের ওপরই বর্তায়। তাহলে এজেন্ট পরিচালনাকারী কার্যালয় নিয়ে অপপ্রচার কেনো? এ প্রশ্নও তুলেছেন কেউ কেউ।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More