প্রেমিক গ্যাঁড়াকলে

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: রাতে গোপনে প্রেমিকার ঘরে ঢুকে রক্তাত্ত জখম হলেন আলমডাঙ্গা ছত্রপাড়ার এক সন্তানের জনক সোহেল রানা। বৃহস্পতিবার রাত ১১ টার দিকে বন্ধুর মোটরসাইকেলে করে মাধবপুর গ্রামে স্কুলপড়–য়া প্রেমিকার ঘরে ঢোকে। এসময় প্রতিবেশীরা টের পেয়ে তাকে ধরে মারধর করে রক্তাত্ত জখম করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
জানাগেছে, উপজেলার ডাউকি ইউনিয়নের মাধবপুর গ্রামের রুজদার আলীর স্কুলপড়–য়া মেয়ে ১ বছর আগে ছত্রপাড়ায় ফুফাতো বোনের বাসায় দাওয়াত খেতে যায়। ছত্রপাড়ায় ফুফাতো বোনের বাড়ির দাওয়াত খেতে গিয়ে প্রতিবেশী আজিজুল হকের ছেলে সোহেল রানার (২৮) সাথে পরিচয় হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সোহেল রানা টাইলস মিস্ত্রীর কাজ করেন এবং নিজেকে অবিবাহিত বলে ওই স্কুল পড়ুয়া মেয়ের কাছে পরিচয় দেন। সোহেল রানা কয়েক বছর আগেই দর্শনায় বিয়ে করেছেন। তার একটি কন্যা সন্তান আছে। মাঝে মাঝেই স্কুল পড়–য়া মেয়ের সাথে সোহেল দেখা করতেন। রাতের বেলা তার বাড়িতেও গিয়ে রাত কাটিয়েছে বলেও জানা যায়। বৃহস্পতিবার রাতে সোহেল তার দুই বন্ধুকে সাথে নিয়ে রাত ১১টার দিকে মাধবপুর গ্রামের যান। সোহেল রানাকে ওই মেয়ের ঘরে তুলে দিয়ে দুই বন্ধু সটকে পড়ে। ওই দুই বন্ধুকে বকশিপুর মাঠের মধ্যে বেশকিছু লোকজন আটক করে। পরে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তারা বলে আরেকজন ওই মেয়ের ঘরে আছে। এসময় স্থানীয় লোকজন ওই মেয়ের বাড়ি গিয়ে চড়াও হয়। এসময় মেয়ের পিতা ও ভাইদের সহযোগিতায় মেয়ের ঘরে খুলে সোহেল রানাকে বের করে। এসময় মেয়ের ভাই ও প্রতিবেশীরা সোহেলকে মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে আলমডাঙ্গা আনন্দধাম আব্দুল হামিদ মেমোরিয়াল (প্রা.) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার সকালে চিকিৎসা শেষে বাড়ি যান তিনি।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More