বিভিন্ন অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২২ জনকে জরিমানা

মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার বিভিন্ন স্থানে প্রশাসনের অভিযান
স্টাফ রিপোর্টার: সারাদেশে হু হু করে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিলেও সংক্রমণ রোধ করা যাচ্ছে না কিছুতেই। তাই সচেতনতা বাড়াতে সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, মাস্ক পরা, বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিকেল ৪টার পর বন্ধ রাখাসহ বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তারপরও কিছু অসচেতন ব্যক্তি সরকারি ওইসব নির্দেশনা না মেনে রাস্তায় ঘোরাঘুরিসহ বিভিন্ন কার্যকলাপ করছেন। এ কারণে প্রশাসনের পক্ষে অভিযান চালানো হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা মাস্ক না পরে ঘোরাফেরার অপরাধে ১৪ জনকে জরিমানা করা হয়েছে। অপরদিকে, মেহেরপুরের কেদারগঞ্জ এলাকায় সরকারি আদেশ অমান্য, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা, মাস্ক পরিধান না করা এবং বিকেল ৪টার পর দোকান খোলা রাখায় ১২ ব্যক্তিকে জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও মেহেরপুর শহরে দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ৬ জনকে জরিমানা করা হয়েছে।
আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মাস্ক না পরে বাইরে ঘোরাফেরার অপরাধে ১৪ জনকে জরিমানা করেছে। গতকাল বেলা ১২ টার দিকে শহরের আল-তায়েবার মোড়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন আলী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
জানা গেছে, মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় শুরু থেকেই সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছেন। প্রতিদিনই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন আলী শুধু শহর নয় উপজেলার যে সকল গ্রামে করোনা পজেটিভ আছে সেইসব গ্রামে তিনি মানুষকে সচেতন করেতে ছুটে যান। গতকাল সকাল থেকেই তিনি শহরের বিভিন্ন মোড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। মাস্ক না পরে দোকানে বেচাকেনা করা ও বাইরে বের হওয়ার অপরাধে বাদলকে ১শ’ টাকা, জামালকে ১শ’ টাকা, আমিরুলকে ২শ’ টাকা, আশরাফুলকে ১শ’ টাকা, শওকত আলীকে ২শ’ টাকা, জাহাঙ্গীরকে ২শ’ টাকা, পল্টুকে ২শ’ টাকা, আমিরুলকে ২শ’ টাকা, শাকিলকে ৫শ’ টাকা, হাসানকে ২শ’ টাকা, ছমিরকে ২শ’ টাকা, মনিরুলকে ৩শ’ টাকা, জামালকে ২শ’ টাকা, রানাকে ৩শ’ টাকা জরিমানা করেন। তিনি এসময় মাইকে সকলকে সচেতন করতে মাস্ক পরে বাইরে বের হওয়ার জন্য নিদের্শ প্রদান করেন।
মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মহামারি করোনা ভাইরাসরোধে সরকারি আদেশ অমান্য, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা ও মাক্স পরিধান ছাড়া বাইরে ঘোরাফেরা করায় মুজিবনগর উপজেলার কেদারগঞ্জ বাজার এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ১২ ব্যক্তিকে এবং একই ধরনের অভিযোগে মেহেরপুর শহরের দুই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানসহ ৬ জনকে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকেলে মুজিবনগরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ওসমান গনি এবং মেহেরপুর শহরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সুজন দাস গুপ্ত ওই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, করোনা ভাইরাসরোধে সরকারি বিধি মোতাবেক সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা ও মাস্ক পরিধান ছাড়া বাইরে ঘোরাফেরা করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার কেদারগঞ্জ বাজারের ১২ ব্যক্তিকে ৩১০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন। একই সময় কেদারগঞ্জ বাজারের ওপর দিয়ে মাটিভর্তি ট্রাক্টর যাওয়ার মাটি পড়ে রাস্তা পিচ্ছিল হওয়ায় ট্রাক্টরের চালক সানোয়ার হোসেনকে এক হাজার টাকা জরিমান আদায় ও মার্টি ভর্তি ট্রাক্টর চালককে সর্তক করা হয়। এ সময় মুজিবনগর থানার পুলিশ তার সাথে ছিলো।
একইদিন বিকেলে মেহেরপুর শহরে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বিকেল ৪ টার পরেও দোকান খোলা রাখায় ২ দোকানদারকে ১৫০০ টাকা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা ও মাস্ক পরিধান ছাড়া বাইরে ঘোরাফেরা করায় ৬ জনকে ১৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More