মেহেরপুর তাহের ক্লিনিকের ডা.তাহেরের বিরুদ্ধে একদিন বয়সী শিশুর ভুল অপারেশনের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: মেহেরপুরের তাহের ক্লিনিকের মালিক ও চিকিৎসক ডা. তাহেরের বিরুদ্ধে একদিন বয়সী শিশুর মলদ্বারে ভুল অপারেশন ও প্রসাবের নালি কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। ভুল অপারেশনের কারণে ওই নবজাতক এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ও ২য় দফায় মেহেরপুর কলেজ রোডের তাহের ক্লিনিকে। এ ঘটনায় আইনি সহায়তা চেয়ে মানবতা ফাউন্ডেশনে আবেদন করেছেন শিশুর পিতা চুয়াডাঙ্গা শহরের বনানীপাড়ার ফরিদুল ইসলাম।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বনানীপাড়ার ফরিদুল ইসলাম হৃদয়ের স্ত্রী গর্ভবতী জেসমিন গত ৩ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে প্রসব বেদনা ওঠে। আধা ঘণ্টার মধ্যে ফরিদুল তার স্ত্রীকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি করেন। ভর্তির আনুমানিক দেড়ঘণ্টার মাথায় ফরিদুলের স্ত্রী জেসমিনের সাধারণ ডেলিভারির মাধ্যমে একটি পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। নবজাতকের জন্মের পরেই চিকিৎসক ও নার্সরা দেখতে পান যে, শিশুটির মলদ্বার নেই। এমন ভয়াবহ অবস্থার মধ্যেই, তার মলদ্বারের জন্য কোনো অপারেশন না করে উন্নত চিকিৎসার জন্য কোনো উন্নততর হাসপাতালে রেফার না করে নবজাতক জন্মের মাত্র এক ঘণ্টা পর রাত ১২টায় হাসপাতাল থেকে নবপ্রসূতি মা ও অসুস্থ নবজাতককে রিলিজ দেয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ওই রাতে অস্বাভাবিক শরীরের অসুস্থ নবজাতক সন্তান ও অসুস্থ স্ত্রীকে নিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন ফরিদুল। হাসপাতাল চত্বরের দালালের খপ্পরে পড়ে তিনি নবজাতককে মেহেরপুর কলেজ রোডের তাহের ক্লিনিকে নিয়ে যান। ওই ক্লিনিকের মালিক ও চিকিৎসক ডা.তাহের নবজাতকের অপারেশন করে মলদ্বারের পথ তৈরি করতে গিয়ে শিশুর প্রসাবের নালি কেটে ফেলেন। ফলে নবজাতকের স্বাভাবিক মূত্রনালী দিয়ে যে প্রসাব হচ্ছিলো, সেটা মলদ্বার দিয়ে হচ্ছে। ইতিমধ্যে ভুল অপারেশনের কারণে মলদ্বারেও মারাত্মক ইনফেকশন হয়ে শিশুটির জীবন সংকটাপন্ন। অপারেশন বাবদ ডা. তাহের নিয়েছেন ১৮ হাজার টাকা ও তার নিজের মালিকানাধীন ভাই-বোন ফার্মেসি থেকে ওষধ বাবদ বিল নিয়েছেন ৩ হাজার টাকা। গত ৪ সেপ্টেম্বর অপারেশন করেই, কোন পর্যবেক্ষণ ছাড়াই পরদিন ৫ সেপ্টেম্বর ছাড়পত্র দেয়া হয় তাহের ক্লিনিক থেকে। কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. আবদুল¬াহ আল মামুন নবজাতককে দেখে ঢাকা পিজি হাসপাতালে রেফার করেছেন। একমাস ৫দিন বয়সী এই শিশু পুত্রকে নিয়ে গরিব পিতা-মাতা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। গতকাল শুক্রবার অসহায় বিপদগ্রস্ত পিতা চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও মেহেরপুর তাহের ক্লিনিকের মালিক ও চিকিৎসক ডা. তাহেরের ভুল চিকিৎসার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে মানবতা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অ্যাড. মানি খন্দকার বরাবর আইনি সহায়তা চেয়ে আবেদন করেছেন। মামলা দায়েরের পস্তুতি চলছে। নবজাতক রাতুলকে (১ মাস ৫দিন) নিয়ে আজ শনিবার পিতা ফরিদুল ও মাতা জেসমিন ঢাকা পিজি হাসপাতালে ভর্তির নিমিত্তে রওনা হবেন।
এদিকে দরিদ্র পিতা-মাতা তাদের সন্তানের চিকিৎসার জন্য বিত্তশালীদের নিকট আর্থিক সহায়তার আহ্বান করেছেন। অর্থ সহায়তার জন্য নবজাতকের পিতা মার্কেন্টাইল ব্যাংকের চুয়াডাঙ্গা শাখার ১১৭৬১২১১৮১২৪৬৪৯ এই হিসাব নম্বরে টাকা জমা দেয়ার অনুরোধ করেছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More