যৌতুকের টাকা ও জমি লিখে না দেয়ায় পুত্রবধূকে বের করে দিলেন শ্বশুর

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গার ডম্বলপুর গ্রামে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে শ্বশুর নবিছদ্দিন ম-লের বিরুদ্ধে। নানা অনুনয়-বিনয় করে ছেলের সাথে বিয়েতে রাজি করানোর পর নগদ টাকা ও জমি লিখে দেয়ার দাবিতে শুরু করেন নির্যাতন। একপর্যায়ে প্রবাসী ছেলে সোহেলের স্ত্রী ঝুমকি খাতুনকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন নবিছদ্দিন। এ ঘটনায় নির্যাতিতা গৃহবধূ ঝমকি খাতুন আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
অভিযোগসূত্রে জানা যায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার কালিদাসপুর ইউনিয়নের ডম্বলপুর গ্রামের অবস্থাসম্পন্ন কৃষক মকবুল হোসেনের ৪ মেয়ে। তিন মেয়ের বিয়ে হয়ে গেলেও ছোট মেয়ে ঝুমকি ছিলো অবিবাহিত, দশম শ্রেণির ছাত্রী। সে সময় প্রতিবেশি নবিছদ্দিন ম-ল তার প্রবাসে থাকা ছেলে সোহেলের সাথে ঝুমকির বিয়ের প্রস্তাব দেন। প্রস্তাবে রাজি ছিলেন না মকবুল হোসেনসহ তার পরিবার। একপর্যায়ে ঝুমকির সাথে তার ছেলের বিয়েতে রাজি করানোর জন্য মকবুল হোসেনের পা জড়িয়ে ধরেন ধুরন্ধর নবিছদ্দিন ম-ল। বিয়েতে রাজি না হওয়া অবধি প্রতিদিন নানা অনুনয়-বিনয় করতে থাকেন। একপর্যায়ে বিয়েতে সম্মত হন মকবুল হোসেন। বর বিদেশ। ভিডিও কলে তাদের বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ের কয়েক মাস পার হতে না হতেই নবিছদ্দিনের আসল চেহারা প্রকাশ হয়। তিনি যৌতুক হিসেবে নগদ ৩ লাখ টাকা ও জমি লিখে দেয়ার দাবিতে পুত্রবধূ ঝুমকিকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। একপর্যায়ে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়। এ ঘটনায় নির্যাতিতা ঝুমকি খাতুন আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More