রাতে প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে ইউপি সদস্য : গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে কথিত অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে কবির হোসেন নামে এক ইউপি সদস্যকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। তাকে বেদম মারপিট করা হয়েছে। বুধবার রাতে সদর উপজেলার শালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে প্রবাসির স্ত্রী রেক্সোনার দাবি তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। কবির মেম্বারকে বাইরে থেকে ধরে এনে তার ঘরে ঢুকিয়ে আসামাজিক কাজের দুর্নাম রটানো হচ্ছে। প্রতিবেশী আশির উদ্দীন জানান, সদর উপজেলার হলিধানী ইউনিয়নের শালিয়া গ্রামের ইউপি সদস্য কবির হোসেন দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের ওমান প্রবাসী নজরুল ইসলামের স্ত্রীর সাথে পরকীয়া প্রেম চালিয়ে আসছিলো। এর আগে এ নিয়ে বেশ কয়েকবার সালিস করেছে সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ মিয়া। রেক্সোনার শাশুড়ি ছারা খাতুন অভিযোগ করেন, বুধবার রাত ১২ টার দিকে কবির মেম্বার তার পুত্রবধূর ঘরে ঢুকে ধরা পড়ে।
এ সময় জামাই আব্দুর রাজ্জাক ঘরে আটকিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। ইউপি সদস্য কবির হোসেন অভিযোগ খন্ডন করে বলেন, রাতে আমি ওই পথ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলাম। এ সময় আমার নির্বাচনী প্রতিপক্ষ লোকজন নিয়ে আমাকে মারধর করে ওই মহিলার ঘরে ঢুকিয়ে দুর্নাম রটিয়ে দেয়। প্রবাসির স্ত্রী রেক্সোনা খাতুন জানান, সন্ধ্যা থেকেই আমার ঘরের পেছনে কিছু উঠতি বয়সী যুবক খোকন, আশিক, কাজল ও রাজ্জাক অবস্থান নেয় এবং তারাই কবির মেম্বারকে কোথা থেকে ধরে এনে আমার ঘরে ঢুকিয়ে দেয়। আমি ঘর খুলতে রাজি না হলে তারা আমার ঘরের দজরা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় তারা আমার ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর ও আমার সোনার হার নিয়ে যায়। কবিরের সাথে আমার মিথ্যা দোষারোপ করে কিছু মানুষ ভিলেজ পলিটিক্স করছে বলেও রেক্সোনা অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি (তদন্ত) এমদাদুল হক বলেন, কবির মেম্বার এখন পুলিশ হেফাজতে। কেউ মামলা না করলে এ বিষয়ে টু-টয়েন্টি ধারায় একটি মামলা হবে। তিনি বলেন, ভিকটিম রেক্সোনা মামলা দিলেও আমরা মামলা গ্রহণ করবো।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More