সকলের সচেতনতায় পারে সাইবার অপরাধ রুখতে

গড়াইটুপি প্রতিনিধি: ছেলেবেলায় খাকি পোশাকে কাউকে দেখলেই ভয়ে আঁতকে উঠতাম। ডাকপিয়ন হোক বা পুলিশ কনস্টেবল দেখলেই ভয়ে আত্মারাম খাঁচাছাড়া হওয়ায় জোগাড় হতো। পান থেকে চুন খসলেই বাড়ির মুরুব্বিরা ভয় দেখাতেন পুলিশ এসে ধরে নিয়ে যাবে! কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় সেই পুলিশ আস্তে আস্তে হলেও যথেষ্ট জনবান্ধন পুলিশে পরিণত হয়েছে। জনসেবায় পুলিশের মনোজগতেও ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। পুলিশের পেশাদারিত্বের পাশাপাশি জনবান্ধব বিভিন্ন কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ পুলিশ বাহিনীর মুখ উজ্জ্বল করছে। এরই অংশ হিসেবে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার দর্শনা থানার অন্তর্ভুক্ত গড়াইটুপি ইউনিয়নের খাড়াগোদা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের নিয়ে সাইবার ক্রাইম, বাল্যবিয়ে, ইভটিজিংসহ বিভিন্ন বিষয়ে উন্মুক্ত আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে স্কুল আঙিনায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন দর্শনা থানার ওসি এএইচএম লুৎফুল কবীর। এ সময় তিনি বলেন, বর্তমান আধুনিক বিশ্বকে হাতের মুঠোয় এনেছে ইন্টারনেট। কিন্তু এই ইন্টারনেট ব্যবহার আবার আমাদের হিং¯্র করে তুলেছে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে সংঘটিত সকল ধরনের অপরাধই সাইবার ক্রাইমের অন্তর্ভুক্ত। মূলত সাইবার ক্রাইম হচ্ছে এমন একটি অপরাধ, যাতে প্রধানত কম্পিউটার বা অন্য কোনো ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্র ব্যবহৃত হয় এবং অপরাধীরা ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিশ্বব্যাপী অপরাধগুলো করে থাকে। সাইবার ক্রাইম কোনো নতুন অপরাধ নয়। ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য চুরি, তথ্য বিকৃতি, মানি লন্ডারিং, জালিয়াতি, ব্ল্যাকমেইল ইত্যাদির মতো অপরাধগুলো করা হলে তা সাইবার ক্রাইম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। আমাদের সচেতনতায় পারে এটি রুখতে। কারো কাছে নিজের ছবি, তথ্য দেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। বাল্যবিয়ে একটি সামাজিক অভিশাপ। ১৮ বছরের আগে বিয়ে নয়, একুশের আগে সন্তান নয়, বাল্যবিয়ে সামাজিক ব্যাধি, সবাই মিলে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করি’ আপনারা তথ্য দেবেন, সেবা নেবেন। আপনাদের পরিচয় গোপন রাখা হবে। সচেতনতার বিকল্প কিছু নেই। নৈতিক শিক্ষার আদলে সকলকে মানুষের মত মানুষ হতে হবে। জীবনের স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে সে অনুযায়ী কাজ করতে হবে। এছাড়াও অনুষ্ঠানে সাইবার ক্রাইম সম্পর্কে বিভিন্ন উদাহরণসহ জ্ঞানগর্ব আলোচনা করেন দর্শনা থানার সাইবার অপরাধ ইউনিটের সাব ইন্সপেক্টর শামীম হোসেন। তিনি শিক্ষার্থীরা কিভাবে সাইবার অপরাধের শিকার হয় ও কিভাবে তা প্রতিরোধ করতে হবে সে বিষয়ে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন। এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাহারুল ইসলামসহ সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More