স্বপ্ন পূরণ না হলেও কণ্ঠে থেমে নেই নিজের লেখা গান

শিল্পী হবার স্বপ্ন ছিলো পত্রিকা বিক্রেতা ভাবুক হিরনের

নজরুল ইসলাম: পেপারওয়ালা আমি পেপারওয়ালা। আমি ডিজিটাল যুগের পেপারওয়ালা। আসল নামে আমার কেউ ডাকে না। দেশ বিদেশের খবর নিয়া ঘুরি যে সারাবেলা। সূর্য ওঠার আগেই মানুষের সুখ-দুঃখ, কিংবা দেশের বিদেশের খবর যেখানে লেখা থাকে সেই পত্রিকা নিয়ে বাড়িতে দোকানে কড়া নাড়েন দর্শনার আলোচিত প্রতিভাবান গায়ক পত্রিকা বিক্রেতা ভাবুক হিরণ। ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিলো গান গেয়ে খ্যাতি অর্জনের। সে স্বপ্ন তার পূরণ না হলেও সারাক্ষণ গান গাওয়ার পাশাপাশি জীবন ও জীবিকার অবলম্বন হিসেবে বেছে নিয়েছেন পত্রিকা বিক্রির কাজ। তাই ভাবুক হিরণের প্রতিদিনের রুটিন কাজ হচ্ছে বাইসাইকেলযোগে পাঠকের হাতে পত্রিকা তুলে দেয়া এবং কণ্ঠে গুণগুণ করে অবিরাম গান গাওয়া। দর্শনার হারুন অর রশিদ হিরণ ওরফে ভাবুক হিরণ সকলের কাছে পরিচিত নাম শিল্পী পেপারওয়ালা।

মানুষকে তো পরিমাপ করা যায় না, সম্ভবও নয়। মানুষ জন্মের পর থেকে ধীরে ধীরে বিকশিত হয়, প্রসারিত হয়, প্রস্ফুটিত হয়। ক্রমান্বয়ে সে নিজেকে তুলে ধরতে পারে, মানবতার অংশ হয়ে ওঠে। তার জাদুকরি কর্মক্ষমতা আর মানুষের ভালোবাসা ও আস্থায় সে নামটা ধীরে ধীরে একসময় কারো জীবনে বিশেষণ হয়ে দাঁড়ায়। উপমহাদেশের মহান দার্শনিক এপিজে আবদুল কালামের অবিস্মরণীয় সেই বাণীর কথা স্বপ্ন সেটা নয়, যেটা তুমি ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে দেখো। স্বপ্ন হলো সেটা, যা পূরণের অদম্য ইচ্ছা তোমাকে ঘুমাতে দেবে না। এই বাণীর মর্মার্থই যেনো তাড়া করে নিয়ে বেড়াচ্ছে চুয়াডাঙ্গা দর্শনা পৌর এলাকার রামনগর করিমপুরের মফিজ রহমানের ছেলে হারুন অর রশিদ হিরণ ওরফে ভাবুক হিরণ। যদিও আদি বাড়ি ছিলো দামুড়হুদা উপজেলার বিষ্ণপুর গ্রামে। পিতা বিষ্ণুপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি ছিলেন। ৫ ভাইয়ের মধ্যে তিনিই সবার বড়। সংসারের হাল ধরতে জীবন জীবিকার হাতিয়ার হিসাবে বেছে নিয়েছেন পত্রিকা বিক্রির কাজ। তাই তো সূর্য ওঠার আগেই বাড়ি থেকে বাইসাইকেলযোগে দর্শনা বাস্ট্যা-ে এসে উপস্থিত হওয়া। স্থানীয়, আঞ্চলিক এবং পরবর্তীতে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকা ব্যাগে ভরে পাঠকের হাতে পৌঁছে দেয়া তার দৈনন্দিন কাজ। তবে পাঠকের হাতে পৌঁছানোর আগে অধিকাংশ পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠায় চোখ বুলাতে ভুল হয় না তার। ১৯৮১ সালে জন্মগ্রহণ করা ভাবুক হিরণ এসএসসি পাস। অভাব অনটনের সংসারে আর লেখাপড়া করা হয়নি তার।  এক ছেলে ও এক মেয়ের জনক তিনি। ছোটবেলা থেকে প্রবল ইচ্ছা ছিলো শিল্পী হবার। সে স্বপ্ন তার পূরণ না হলেও মুখ থেকে যায়নি গান। সুযোগ পেলেই আপন মনে গেয়ে থাকেন নিজের লেখা গান। এরই মধ্যে পোপারওয়ালা ভাই পেপার ওয়ালা ও দর্শনা কেরুজ চিনিকল নিয়ে নিজের সুরে গাওয়া গান ইউটিউব চ্যানেলে ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে। ভাবুক হিরন বলেন, জীবনে শিল্পী হবার ইচ্ছা ছিলো। অভাবের সংসারে তা হয়ে ওঠেনি। তবে হাল ছাড়িনি। স্ত্রী সন্তানকে সাথে নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আর আমার সব কাজের প্রেরণা যোগায় আমার সহধর্মীনি নাজিরা বেগম। আমার গাওয়া গানগুলো নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা আছে। আমার গানগুলো লাইক, শেয়ার করলে আরও গান গাওয়ার উৎসাহ পাবো। আর মৃত্যুর আগমুহূর্ত পর্যন্ত গানের মধ্যেই বেঁচে থাকতে চাই। পত্রিকায় অনেকের কথায় লেখা থাকে আমার কথা কোনোদিন লেখা হয়নি। হলে খুশিই হতাম।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More