সামাজিক অবক্ষয় রোধে এ ধরনের আয়োজন খুবই জরুরি

দর্শনায় বাউল উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে কেরুজ এমডি মোশারফ হোসেন
দর্শনা অফিস: প্রতি বছরের মতো এ বছরো দর্শনা আকুন্দবাড়িয়ায় ৩দিনব্যাপী বাউল ও লোকজ উৎসবের শেষ হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় আকুন্দবাড়িয়া বাউল পরিষদের আয়োজনে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে কেরুজ চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালাক মোশারফ হোসেন বলেন, যুব সমাজকে মাদক ও অপরাধমূলক কর্মকা- থেকে ফিরিয়ে রাখতে বেশি বেশি করে দেশীয় সাংস্কৃতিক চর্চা করতে হবে। আয়োজন করতে হবে এ ধরনের বাউল উৎসব। যেখানে মানুষ ছুটে আসে দলবদ্ধভাবে। বাংলা, বাঙালি ও মাটির গন্ধ পাওয়া যায় এ রকম উৎসবে। আকাশ সংস্কৃতি ও অপ-সংস্কৃতির রোষানলে পড়ে বাঙালির আদি সংস্কৃতি আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। এ ধরনের আয়োজনের মধ্যদিয়ে আদি সংস্কৃতি আবারো ফিরিয়ে আনা সম্ভবত তেমনিভাবে সম্ভব অপ-সংস্কৃতি রুখে দেয়া। আজকে যুব সমাজ অপ-সংস্কৃতি ও আকাশ সংস্কৃতির রোষানলে পরে এগিয়ে যাচ্ছে অবক্ষয়ের পথে। ধীরু বাউল প্রতিবছর এ ধরনের আয়োজনের মাধ্যমে বাংলার ঐতিহ্যে লালিত বাউল সংগীতকে টিকিয়ে রেখেছেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কেরুজ চিনিকলের মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) শেখ শাহাব উদ্দিন বলেন, বাংলার আদি সাংস্কৃতি যখন হারিয়ে যাওয়ার পথে, তখন ধীরু বাউলের এ আয়োজন প্রশংসার যোগ্য বটে। হারিয়ে যাওয়া লোক সংস্কৃতিকে মনে করিয়ে দেয় এ ধরনের আয়োজন। আমি বরাবর এ আয়োজনে থাকতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করি। আকন্দবাড়িয়া বাউল পরিষদের সভাপতি মনিরুজ্জামান ধীরু বাউলের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দর্শনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হারুন রাজু, সাবেক সভাপতি ইকরামুল হক পিপুল, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম। সার্বিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাত্রলীগ নেতা অ্যাড. প্রকাশ বিশ্বাস। পরে সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More