‘আবার যখন হলো দেখা প্রাণের মাঝে আই’ গানের মুর্ছূনায় মেতে বন্ধু সংগঠন প্রতীত

বর্তমান কমিটিই পুনঃনির্বাচিত : বন্ধুত্বের বন্ধন দৃঢ় করার প্রত্যয়
স্টাফ রিপোর্টার: ‘আবার যখন হলো দেখা প্রাণের মাঝে আই’ গানের মুর্ছূনায় মেতে বন্ধু সংগঠন প্রতীত’র বার্ষিক সাধারণসভা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে। সাধারণ সভা ও আনন্দ মিলনে সর্বসম্মতিক্রমে বর্তমান কার্যকরী কমিটিকে আসন্ন দু’বছরের জন্য পুনঃনির্বাচিত করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত সাধারণ সভা ও আনন্দ মিলন অনুষ্ঠিত হয়। সন্ধ্যায় বন্ধুরা মেতে ওঠে বাউল গানের আসরে। প্রতীত সভাপতি আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সাধারণ সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতীত প্রতিষ্ঠার রূপকার আহমেদ দানিয়েল ইসলাম, বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন সহসভাপতি সরদার আল আমিন। সহসাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ফজলে রাব্বি সাগরের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত সাধারণ সভায় সাধারণ সম্পাদক পলাশ কুমার আগরওলার অনুপস্থিতিজনিত শূন্যতা পূরণে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন সহসভাপতিসহ কার্যকরি কমিটির বাকি সকলে। মুক্ত আলোচনায় উপস্থিত বন্ধুদের প্রায় সকলেই তাদের অভিমত ব্যক্ত করে প্রতীত’র অগ্রযাত্রা তরান্বিত করতে সমৃদ্ধ তহবিল গঠনের গুরুত্ব উঠে আসে।
সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে পেশকৃত প্রতিবেদনে বলা হয়, বন্ধুত্ব যখন চারাগাছের মত, পরিচর্যায় বাড়ে। অপরিচর্যায় আগাছায় ঘিরে ধরে। বন্ধুত্বে পড়ে মরিচা। প্রাণের পিপাসা মেটানোর জন্য যখন হাপিত্যেস, তখন আশে পাশে থাকে না যেনো কেউ। চরম এই বাস্তবতাকে উপলব্ধি করে বন্ধুদের মধ্যে যখন আকুলিবিকুলি তখনই বন্ধু আহমেদ দানিয়েল ইসলামের তাগিদে বন্ধুত্বর বন্ধন নামক মালা নতুন করে গাঁথা হয়। প্রতীত’র ভিত্তি মূলত সেখান থেকেই। ২০১৮ সালের নভেম্বর আব্দুস সালামের বাসায় বসে প্রাণের টানেই গড়ে ওঠে বন্ধুত্বের বাতাবরণ। নামকরণ করা হয় প্রতীত। যার অর্থ কোন কিছু পাওয়ার প্রত্যয়ী মানসিকতা। আমরা যারা বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ তাদের অভিন্ন মানসিকতার প্রমাণও আজকের মিলন মেলা। যদিও আমাদের এ বন্ধুত্বের গুড়াপত্তন মূলত চুয়াডাঙ্গা ভি.জে উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৮৬ ব্যাচ।
প্রতীত সদস্যদের সরব পদচারনা বিশ^জুড়ে। বাংলার প্রায় সব প্রান্তেই রয়েছে ছড়িয়ে ছিটিয়ে। গ্রেট ব্রিটেন থেকে যেমন এসেছে তেমনই এসেছে ঘাটাইল, চাটগা ভোলাসহ যে যেখানে থাকে সেখান থেকে। বন্ধু সংগঠন প্রতীত’র দিনব্যাপী আয়োজনে যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের মধ্যে ররেছে (উপস্থিতি স্বাক্ষর ক্রমানুসারে) আহমেদ দানিয়েল ইসলাম, আব্দুস সালাম, সরদার আল আমিন, ফজলে রাব্বি সাগর, বড় বাবু, সাজ্জাদুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান টুটুল, তালাত মাহমুদ শিমুল, ইতি রাণী বিশ^াস, সারাফত হোসেন তুষার, খন্দকার শামীম মাহমুদ রানা, সানাউল করিম, আব্দুল হাফিজ বকুল, আব্দুল সিদ্দিক, সৈয়দ বিলাশ, হাবিব সাদাদ বাবিন, তালিম হোসেন, রাজিবুল ইসলাম, ইলিয়াস হোসেন, মাসুদুর রহমান, আশরাফুল আলম জোয়ার্দ্দার, তমাল, শরিফুজ্জামান লিটন, মাসুদ মুরশেদ দুলাল, আহমেদ আক্তার ইমরোজ, সানোয়ার হোসেন, আলী আহমদ, আরিফুল হক, হাসানুল আলম শান্তি জোয়ার্দ্দার, ডা. আহসানুর রহমান, রোকনুজ্জামান রোকন, পারভেজ সাজ্জাদ সুমন, স্বপন কুমার সেনগুপ্ত বাচ্চু, সোহেল আহমেদ ছোট বাবু, নাজিম উদ্দীন, সাহেদ সালাম, গোলাম সরোয়ার, মাসুদুর রহমান মাসুদ, শিরিনা ইয়াসমিন ডলি, ওয়াহেদা ইসলাম পলি, আলমগীর ইসলাম রিপন, শফিকুল ইসলাম, আবু সাঈদ বিটু, অসীম কুমার সাহা, এএনএম আশিক, মাহামুদ উল্লা রবিন, আরিফুজ্জামান পিণ্টু, শাহাবুদ্দিন রুবেল, এম শরিফুল ইসলাম রিণ্টু প্রমুখ।
প্রসঙ্গত: প্রতীত’র যে কমিটি আগামী দু বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছে এর সভাপতি আব্দুস সালাম, সহ সভাপতি সরদার আল আমিন, সাধারণ সম্পাদক পলাশ কুমার আগরওলা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী সাগর, কোষাধ্যক্ষ সাজ্জাদুল আলম রাজু, সাংঠনিক সম্পাদক শাহবুদ্দিন রুবেল, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. তালিম হোসেন। কার্যকরি সদস্য সাহেদ সালাম, আবু সাঈদ বিটুন, এএনএম আশিফ, তালাত মাহমুদ শিমুল, রফিকুল ইসলাম ফিট্টু।

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More