আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ রেলগেটের পাশের স্থাপনা সরিয়ে নেয়া হচ্ছে

এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দারকে ইউনিয়ন যুবলীগের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ রেলগেটের দু’পাশে রাস্তায় যানজট নিরসনে ৬ ফুট রাস্তা চওড়া হওয়ায় এমপি ছেলুন জোয়ার্দ্দারকে সাধুবাদ জানিয়েছে ইউনিয়ন যুবলীগ। রেলগেটের যানজট নিরসনে রাস্তার পাশ থেকে স্থাপনা সরিয়ে নেয়া শুরু হয়েছে গত ৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার থেকে। কয়েকদিনের মধ্যেই রাস্তা প্রশস্তকরণের কাজ শুরু হবে বলে উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের সভাপতি সাবেক হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপির উদ্যোগে ও সহযোগিতায় এ রাস্তা চওড়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা-আলমডাঙ্গা সড়কের ভোগান্তির নাম মুন্সিগঞ্জ রেলগেট। এমন সংবাদ দৈনিক মাথাভাঙ্গা পত্রিকায় কয়েকবার প্রকাশিত হয়। আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিটন আলী ও মুন্সিগঞ্জ বণিক সমিতির উদ্যোগে চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের সভাপতি সাবেক হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপিকে অবগত করে। তিনি বিষয়টি আমলে নিয়ে মুন্সিগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মকবুলার রহমান এবং শ্যামসুন্দর আগরওয়ালা ও রাস্তার দুপাশের জমির মালিকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তারা রাস্তার পাশ থেকে নিজেদের জমি থেকে স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। এছাড়া বাজারের সাদি আলম, রোকন মিয়া, চাল ব্যবসায়ী সুমন তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভেঙে সরিয়ে নেয়ার অঙ্গীকার করেন। তারই প্রেক্ষিতেই শুক্রবার থেকে শুরু হয় এ স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার কাজ। এখন পুরোদমে চলছে রাস্তার পাশ থেকে স্থাপনা সরিয়ে নেয়া কাজ। রাস্তাটি ৬ ফিট চওড়া হবে বলে সূত্রে জানা গেছে। রাস্তাটি চওড়া হলে এলাকাবাসীর যেমন সময় বাঁচবে তেমনি বাজারের ব্যবসায়ীদের ব্যবসার প্রসার বাড়বে বলে মন্তব্য করেছে বাজারের ব্যবসায়ী মহল।

দীর্ঘদিন ধরে মুন্সিগঞ্জ রেলগেট বন্ধ হলেই রেলগেটের দুইদিকে শত শত গাড়ির লাইন লেগে যায়। রাস্তা সরু হওয়ায় দুইটা গাড়ি একসাথে পাশাপাশি যাওয়াটা অসম্ভব হয়ে পড়ে। বিভিন্ন অফিস-আদালতে কর্মকর্তা-কর্মচারী শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্কুলের কলেজের ছেলে মেয়েদের প্রতিনিয়ত রেলগেটে ভোগান্তির শিকার হতে হতো। রাস্তাটি চওড়া হলে এ ভোগান্তি লাঘব হবে বলে জানিয়েছে এলাকার ভুক্তভোগী মহল।

এছাড়া কয়েকটি বৈদ্যুতিক খুঁটির এখনো রাস্তাটির গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। কবে বৈদ্যুতিক খুঁটি সরিয়ে নেয়া হবে এ বিষয়ে সঠিকভাবে তেমন কিছু জানা যায়নি। মুন্সিগঞ্জ ফাঁড়ি পুলিশকেও নিরলস পরিশ্রম করতে হয়। এ যানজটের চিত্র প্রতিদিন একই রকম।

দীর্ঘদিন পরে হলেও মুন্সিগঞ্জ রেলগেটের রাস্তা প্রশস্ত হওয়ায় এলাকাবাসী ও জেহালা ইউনিয়ন যুবলীগ সাধুবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের সভাপতি সাবেক হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিটন আলী ও মুন্সিগঞ্জ বণিক সমিতির আহ্বায়ক মহাসিন আলী ও শাহার আলিসহ বণিক সমিতির সকল নেতাকর্মীরা। সেই সাথে মুন্সিগঞ্জ বাজারের জমিদাতা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মকবুলার রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শ্যামসুন্দর আগরওয়ালা, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মরহুম সাদি আলম, রোকন মিয়া ও চাল ব্যবসায়ী সুমনকে সাধুবাদ ও তাদের দীর্ঘায়ু কামনা করেছে এলাকাবাসী ও ইউনিয়ন যুবলীগের পক্ষে ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মোখলেছুর রহমান শিলন।

 

এছাড়া, আরও পড়ুনঃ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More